স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে ঢামেকের বাতাস

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জের তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে গ্যাসের লিকেজ থেকে ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলছে। এখন পর্যন্ত মসজিদের মুয়াজ্জিন ও তার ছেলেসহ মারা গেছেন ১৬ জন। দগ্ধ ২১ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন। বেশিরভাগেরই শ্বাসনালীসহ শরীরের ৯০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে বলেও জানান তিনি।

বুকফাটা হাহাকার আর গগন বিদারী আর্তনাদ। স্বামী ইব্রাহিম বিশ্বাসের পোড়া দেহটা থেকে বেরিয়ে গেছে প্রাণ। সে খবর কোনভাবেই মানতে পারছেন না স্ত্রী। তাই শোকে বারবার মুর্ছা যাচ্ছিলেন।

শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে একেকটি পোড়া দেহের মৃত্যু খবরে স্বজনদের আহাজারিতে এমনিভাবে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে ওঠে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গন। যেন হৃদয় বিদারক এ ঘটনায় শান্তনা দেয়ার ভাষাও হারিয়ে ফেলেছেন সবাই।

ক্ষুব্ধ স্বজনরা বলছেন, বছরের পর বছর ধরে মসজিদ কমিটিকে গ্যাস লিকেজের কথা বললেও তারা কর্ণপাত না করাতেই হারাতে হলে এতোগুলো তাজা প্রাণ।

একজন বলেন, ‘সামান্য একটা বিষয় কোম্পানীকে বলার পরেও কোনো উদ্যোগ নেয়নি।’

দগ্ধদের পরিদর্শন শেষে ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, পোড়া ক্ষত শরীর নিয়ে যারা এখনো প্রাণে বেঁচে আছেন তারা কেউই শঙ্কামুক্ত নন। পুড়ে গেছে সকলের শ্বাসনালী।

বার্ন ইনস্টিটিউটিটে এসে গতানুগতিক তদন্ত কমিটি, কিছু নগদ ক্ষতিপূরণ আর বিচারের আশ্বাস দিয়ে গেলেন জেলা প্রশাসন ও পুলিশ।

Previous articleমসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬
Next articleচুরির জন্য নয়, হামলা ছিল পরিকল্পিত: অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।