করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এলে আবারও বিপুল অর্থের প্রয়োজন হবে : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মহামারি করোনা ভাইরাসে সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়ার কারণেই দেশে খাদ্য সংকট দেখা যায়নি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় করোনার দ্বিতীয় আঘাতের বিষয়ে দেশবাসীকে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নেহাত প্রয়োজনের বেশি পয়সা খরচ করা চলবে না।

আজ রোববার সকালে সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদাতিক ডিভিশনের মাঝে জাতীয় পতাকা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। সাভার সেনানিবাসে জাতীয় পতাকা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে স্ব স্ব ইউনিট অধিনায়কের হাতে পতাকা হস্তান্তর করেন সেনাপ্রধান।

পরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘অর্থ খরচের ব্যাপারে সবাইকে একটু সচেতন থাকতে হবে। কারণ করোনাভাইরাস আবার যদি ব্যাপক হারে দেখা দেয়, তাহলে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হবে। মানুষকে আবার অর্থ সহায়তা দিতে হবে, তাদের চিকিৎসা করাতে হবে। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমাদের মিতব্যয়ী হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘ঠিক যতটুকু আমাদের নেহাত প্রয়োজন, তার বেশি পয়সা এখন খরচ করা চলবে না। ভবিষ্যতের দিকে লক্ষ্য রেখে সেটা করতে হবে যদিও আমরা বাজেট ঠিক রেখেছি।’

করোনার প্রসঙ্গ টেনে সরকারপ্রধান বলেন, ‘আমরা দেখতে পাচ্ছি করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী একটি খাদ্য মন্দা দেখা দিয়েছে। অনেক উন্নত দেশও হিমশিম খাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশে আমরা ঠিক সঠিক সময়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছিলাম বলে আজকে আমাদের সেই সমস্যাটা দেখা দিচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘কৃষিতে আমার নির্দেশই ছিল প্রচুর পরিমাণ খাদ্য উৎপাদন করতে হবে। যে যেখানে আছে সাধ্যমতো উৎপাদন অব্যাহত রাখতে হবে যাতে কোনো সংকট দেখা না দেয়।’

এখনো করোনাভাইরাসের প্রভাব আছে সতর্ক করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আশঙ্কা করা হচ্ছে, আরেকবার করোনাভাইরাসের প্রভাব বা প্রাদুর্ভাব দেখা দিতে পারে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশে আবার দেখা দিচ্ছে। এখন থেকেই আমাদের সবাইকে সুরক্ষিত থাকতে হবে। সেইসঙ্গে আমাদের খাদ্য উৎপাদন অব্যাহত রাখতে হবে।’