বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পিকে হালদারের অর্থ লোপাটের ঘটনায় অনিন্দিতা মৃধাকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে দুদক। একইসাথে সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) গ্রেফতার সুকুমার মৃধার ভাতিজা অসীম কুমার মিস্ত্রিকে নেয়া হয়েছে আদালতে।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কাশিমপুর কারাগার থেকে দুদকে নিয়ে আসা হলে অনিন্দিতা মৃধার জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন উপপরিচালক মো সালাউদ্দীনের নেতৃত্বাধীন তদন্ত টিম।

অনিন্দিতা মৃধার বাবা সুকুমার মৃধা পিকে হালদারের আয়কর সংশ্লিষ্ট আইনজীবী ছিলেন। সে সূত্রে পিকে হালদারের অবর্তমানে তার সম্পদ সুকুমার মৃধা ও অনিন্দিতা মৃধার তত্ত্বাবধানে ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া অনিন্দিতা মৃধাকে উইন্টার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের পরিচালক করেন পিকে হালদার।

এ কোম্পানির নামে এফএএস ফিন্যান্স এন্ড লিজিং ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিনানশিয়ালি সার্ভিস থেকে ভুয়া ঋণে তুলে নেন ১৬৮ কোটি টাকা। যা বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে পাচার করা হয়।

এছাড়া পিকে হালদারের মা লীলাবতী হালদারের নামে যে অর্থ লোপাট ও পাচারের অভিযোগ রয়েছে সেখানেও অনিন্দিতা মৃধার ব্যাংক হিসাব ব্যবহারের প্রমাণ রয়েছে।

গত ২১ জানুয়ারী সুকুমার মৃধা ও অনিন্দিতা মৃধাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করে দুদক।

এদিকে পিকে হালদারের সংশ্লিষ্টতায় ২০ কোটি ৭০ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ ও পাচারের অভিযোগে গতকাল অসীম কুমার মিস্ত্রিকে গ্রেফতার করে দুদক। অভিযোগ রয়েছে পিকে হালদারের অবৈধ সম্পদ যা সুকুমার মৃধা দেখভাল করতেন, তার অনেকাংশই পাচারে সহযোগিতা করেন অসীম কুমার মিস্ত্রি।