বাংলাদেশ ডেস্ক: মাত্র পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে বেঁচে ফিরেছেন ইউক্রেনে থাকা বাংলাদেশী শিক্ষার্থী রোহান চৌধুরি। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের খারকিভে আটকা পড়ার কথা বিবিসিকে জানিয়েছিলেন তিনি।

খাবার সঙ্কট এবং গোলাগুলির মধ্যেও খারকিভে থেকে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তার। কিন্তু শেষ মুহূর্তে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ায় খারকিভ ছেড়ে আসার সিদ্ধান্ত নেন। পরে ভারতীয় ও বাংলাদেশ দূতাবাসের সহায়তায় হাঙ্গেরিতে আশ্রয় পান তিনি।

কীভাবে খারকিভ ছেড়ে হাঙ্গেরিতে গিয়েছেন এবং সেখান এখন কী অবস্থায় আছে, বাংলাদেশেই বা ফিরবেন কীভাবে এসব নিয়ে কথা বলেছেন বিবিসির সাথে।

রোহান বলেন, যদি আমি আর পাঁচ মিনিট পর বাসা থেকে বের হতাম, তাহলে আর বেঁচে থাকতাম না। কারণ আমি যেখানে ছিলাম, সেখামে অনেক বোমা হামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, ভারতীয় দূতাবাস থেকে কিছু পরামর্শ এসেছিল যেগুলো আমরা ফলো করেছি। কারণ বাংলাদেশ ও ভারতীয় দূতাবাস প্রায় একই ধরণের তথ্য সরবরাহ করে। ভারতীয় দূতাবাস বলেছে যে, যত ভারতীয় আছে তাদের খারকিভ থেকে সরিয়ে নিতে হবে ২ মার্চ রাত ৮টার মধ্যে। তার মানে সবার হাতে সময় খুব কম ছিল।

’আমরা যেদিন রেল স্টেশনে যাই, খারকিভ থেকে বের হওয়ার জন্য আমাদের ১৮ ঘণ্টা ঠাণ্ডায় দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়েছিল। এরপর ট্রেন পেয়েছি। আমাদের সারা শরীর ব্যাথা হয়ে গিয়েছিল। তবুও সহ্য করেছি। কারণ বাড়ি যেতে হবে।’

’যখন আমরা লিভিভে পৌঁছাই, সেখানেও ৫-৬ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে। কারণ লিভিভ থেকে সীমান্তে যাওয়ার কোনো বাস নেই। পরে ভারতীয় দূতাবাস কতগুলো বাসের ব্যবস্থা করেছিল। লিভিভ থেকে সীমান্তে আসতে ৫ ঘণ্টা লেগেছে। ওই সীমান্তের নাম ছিল চপ। যখন বর্ডারে আসি, তখন ইউক্রেনিয়ার রেডক্রসের একটি দল ওখানে ছিল। এরপর জাগোনিয়া সীমান্ত দিয়ে হাঙ্গেরি প্রবেশ করি। ওখান থেকে তারা আমাদের নিজেদের বাচ্চার মতো যত্ন করেছে।’

হাঙ্গেরি ঢুকে রাজধানী বুদাপেস্টে চলে যান রোহান। সেখানে অস্ট্রিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে কথা বলেন। তারা একজন স্বেচ্ছাসেবকের সাথে সাক্ষাৎ করিয়ে দেন। এখন তার বাসায় অবস্থান করছেন। বাংলাদেশ দূতাবাস ফেরার টিকেটের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত সেখানেই থাকবেন।

সূত্র : বিবিসি

Previous articleদেশে ফিরেছেন ২৮ নাবিক
Next articleকুমিল্লায় ট্রেনে কাটা পড়ে ৩ শিশু শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।