বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪
Homeজাতীয়মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতিতে বাংলাদেশকে ৩০১ সুপারিশ

মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতিতে বাংলাদেশকে ৩০১ সুপারিশ

আজকের ডেস্কঃ বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি ক্রমে খারাপ হচ্ছে বলে মঙ্গলবার জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের (এইচআরসি) এক বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। পর দিন (১৫ নভেম্বর) বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতির জন্য বিশ্বের ১১০ দেশ ৩০১টি সুপারিশ করে। বুধবার রাতেই জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের ইউনিভার্সাল পিরিয়ডিক রিভিউর (ইউপিআর) ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে প্রতিবেদনের খসড়া গৃহীত হয়েছে।
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক পর্যালোচনা সভায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। তবে সুপারিশমালা অনুমোদনের সভায় তিনি উপস্থিত ছিলেন না। জেনেভায় জাতিসংঘ মিশনে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ সুফিউর রহমান আইনমন্ত্রীর পরিবর্তে সভায় বক্তব্য দেন।

বিভিন্ন বিষয়ে সুপারিশ প্রদান করা দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়ে সুফিউর রহমান বলেন, বাংলাদেশ এসব সুপারিশ পর্যালোচনা করে তার সিদ্ধান্ত আগামী ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় মানবাধিকার পরিষদের ৫৫তম অধিবেশনের আগেই জানিয়ে দেবে।

এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে, বহুল আলোচিত গুমবিষয়ক সনদ ও নির্যাতনবিরোধী সনদের অতিরিক্ত চুক্তি অনুমোদন, গুমের ঘটনাগুলোর স্বচ্ছ তদন্ত, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর সদস্যদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগের স্বাধীন তদন্ত এবং দোষীদের বিচার ও সাজার ব্যবস্থা করা।

সুপারিশের মধ্যে আরও রয়েছে মৃত্যুদণ্ডের বিধান বিলোপ ও সব ফাঁসির দণ্ড কমিয়ে কারাদণ্ড দেওয়া, সাইবার নিরাপত্তা আইনের সংশোধন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা, সভা ও সংগঠনের অধিকার নিশ্চিতের ব্যবস্থা করা, অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের ব্যবস্থা করা, মানবাধিকাররক্ষী, নাগরিকসমাজ বা এনজিও সদস্যদের হয়রানি ও ভীতি প্রদর্শন বন্ধ করা, নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধ এবং নাবালিকাদের বিয়ে বন্ধে আইন সংশোধন।

তা ছাড়া ক্ষুদ্র জাতিসত্তা ও বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী, ধর্মীয় সংখ্যালঘু ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অধিকার নিশ্চিত করা, বৈষম্যবিরোধী আইন প্রণয়ন, ন্যূনতম জাতীয় মজুরি ঘোষণা, শ্রমিকদের আইএলও-স্বীকৃত সব অধিকার নিশ্চিত করার বিষয়ও রয়েছে সুপারিশে।

এদিকে মঙ্গলবার এইচআরসির বিশেজ্ঞদের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, ২০২৪ সালের শুরুতে বাংলাদেশে পরবর্তী সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে, রাজনৈতিক সহিংসতাবিরোধী রাজনৈতিক দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের গ্রেপ্তার, রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের গণগ্রেপ্তারের ঘটনায় তারা উদ্বিগ্ন। এ ছাড়া বিক্ষোভ-আন্দোলন দমাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শক্তিপ্রয়োগ, ইন্টারনেটসেবা বন্ধ করে দেওয়া, পরিবারের সদস্যদের হয়রানি, ভয় দেখানো এবং বেআইনিভাবে আটক রাখার অভিযোগ সামনে এসেছে। এসব নিয়ে মানবাধিকার বিশেষজ্ঞদের যথেষ্ট উদ্বেগ রয়েছে।

সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর হুমকির বিষয়ে বলা হয়েছে, কয়েক বছরে সংবাদমাধ্যম ও সংবাদকর্মীদের ওপর হামলা, নজরদারি, ভয় দেখানো এবং বিচারিক হয়রানির কারণে এ মাধ্যমে ব্যাপক স্ব-সেন্সরশিপ ছড়িয়ে পড়েছে।

সাংবাদিক, মানবাধিকারকর্মী ও নাগরিকসমাজের নেতাদের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করায় উদ্বেগ জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, এমন ঘটনা বিচার বিভাগের স্বাধীনতা খর্ব করে। সেই সঙ্গে মৌলিক মানবাধিকার ক্ষুণ্ন করে।

এইচআরসির মতে, সরকারি হিসাব অনুযায়ী মতপ্রকাশের অধিকার খর্ব করার সঙ্গে সম্পৃক্ত ৫ হাজার ৬০০টির বেশি মামলা এখনও চলমান রয়েছে। আলোচিত-সমালোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা এসব মামলায় প্রখ্যাত অনেক সাংবাদিক-সম্পাদককে আসামি করা হয়েছে। নতুন সাইবার নিরাপত্তা আইন নিয়েও উদ্বেগ রয়ে গেছে।

এ অবস্থায় জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা মানবাধিকার পরিস্থিতির পর্যালোচনাকে বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন। তাদের মতে, মানবাধিকার নিয়ে প্রতিশ্রুতি শুধু কাগজে সীমাবদ্ধ না রেখে তা বাস্তবায়নের জন্য সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য এটা বাংলাদেশের জন্য বড় উপলক্ষ। মানবাধিকারকর্মী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা বন্ধে বাংলাদেশের দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার এটাই ভালো সুযোগ।

একই সঙ্গে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের জন্য নিরাপদ উন্মুক্ত ও অনুকূল পরিবেশ তৈরি করতে বাংলাদেশকে চাপ দিতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

অন্যদিকে বুধবার প্রস্তাবিত ১১০ দেশের ৩০১ সুপারিশকে গুরুত্বের সঙ্গে নিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে এইচআরসি।

সূত্র : জাতিসংঘের ওয়েবসাইট

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments