যে গ্রামে সুন্দরী মেয়ে থাকার পরও ওই গ্রামে বিয়ে করতে চায় না ছেলেরা

বাংলাদেশ ডেস্ক: গ্রামটি একেবারে গণ্ডগ্রাম নয়, যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভালো। গ্রামের মেয়েগুলোও সুন্দরি। তারপরও এই গ্রামে ছেলেরা বিয়ে করতে চায় না।

জানা গেছে বানরের উৎপাতে ভারতের ভোজপুরের রতনপুর গ্রামে কেউ বিয়ে করতে চায় না। বানরের আক্রমণের চেয়ে তারা নিরাপদে থাকতেই বেশি পছন্দ করে।

আর সেই কারণে যখন রতনপুর গ্রাম থেকে বিয়ের প্রস্তাব আসে, বর এবং তার পরিবার সুস্পষ্ট এই কারণ দেখিয়ে ঘটককে বিদায় করে দেয়।

গ্রামে বাসিন্দাদের তুলনায় বানরের সংখ্যা অনেক বেশি এবং বানরের দল গ্রামবাসীদের সবসময় আতঙ্কের মধ্যে রাখে।

যে কোনো অনুষ্ঠান, বিয়ে বা জন্মদিন এমনকি শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানেও বানরের দল হানা দিতে দেরি করে না। খাবার নষ্ট করে। তাড়িয়ে দিলে উল্টো তেড়ে এসে তুলকালাম কাণ্ড ঘটায়।

এই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পাত্রপক্ষ ওই গ্রামে যেতে চায় না।

স্থানীয় প্রশাসন বিপর্যয় রোধে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছে। কিন্তু বানরের ক্রমবর্ধমান সংখ্যার কারণে তারা সফল হয়নি।

বিশেষ করে কোনো আয়োজন উপলক্ষ্যে যখন ভালো-মন্দ খাবার তৈরি করা হয় তখন বানরগুলো হামলা চালায়।

অতীতেও এ গ্রামে এভাবে অনেক বিয়ের অনুষ্ঠান ভণ্ডুল হয়ে গেছে।