কাগজ প্রতিবেদক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ক্ষমতাসীন সরকার, নির্বাচন কমিশন, জনপ্রশাসন, পুলিশ ও আদালত- কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন গত ৩০ ডিসেম্বর প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে যাদের নির্বাচিত বলে ঘোষণা করেছে তারা কেউই নির্বাচিত নয়। এবং যাদের গেজেট প্রকাশ করেছে তারা কেউই জনপ্রতিনিধি নয়।

শনিবার বিকালে সেগুন বাগিচায় শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে (২য় তলায়) গণফোরামের সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। ড. কামাল হোসেন বলেন, আমরা ইতোপূর্বে এই নির্বাচন ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করেছি। অবিলম্বে নির্দলীয় সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানাই।

তিনি আরো বলেন, তা না হলে ঐক্যবদ্ধ জনগনকে সাথে নিয়ে নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে গণআন্দোলনের মাধ্যমে আমরা আমাদের হারানো গণতন্ত্র পুনরোদ্ধার করবো। জনগণ ঐক্যবদ্ধ থাকলে অচিরেই বাংলাদেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন, কার্যকর গণতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে গণফোরামের যে দুই নেতা নির্বাচিত হয়েছে তাদের শপথ গ্রহণের ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু। আরো উপস্থিত ছিলেন দলটির কেন্দ্রিয় নেতা অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরি, মফিজুল ইসলাম খান কামাল, সুলতান মোহাম্মাদ মনসুর আহম্মদ, মোকাব্বের খান প্রমুখ।