শফিকুল ইসলাম: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, দেশে ইনোভেশন ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার মাধ্যমে বেসরকারি বিনিয়োগের গতি বৃদ্ধি করতে ডিজিটাল উদ্যোক্তা তৈরি করবে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার। এই সেন্টারে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে লাখ লাখ শিক্ষিত বেকারদের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করবে সরকার। দেশের উন্নয়নের গতি যখন উর্দ্ধগতিতে, তখন মৌলবাদী গোষ্ঠি ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। এ দেশকে তারা আফগানিস্তান, সিরিয়া, পাকিস্থানের মত অস্থিতিশীল রাষ্ট্রে পরিনত করার অশুভ পাঁয়তারা করছে। এদের রুখে দিয়ে দেশের উন্নয়নকে আরো বেগবান করতে জাতীয় ঐক্যেও প্রয়োজন।

তিনি বলেন, লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের আওয়তায় ৪২জন ফ্রিল্যান্সারদের বিশ^ জয়ের হাতিয়ার হিসেবে শেখ হাসিনার দেওয়া ল্যাপটপগুলো জয়পুরহাটের কৃতিসন্তানদের প্রদান করা হলো। আগামীতে জয়পুরহাটের মাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য আমি এবং এই এলাকার সাংসদ বড় ভাই আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন মিলে প্রধানমন্ত্রীর নিকটে দাবী জানাবো। আজকে কালাইয়ের মাটিতে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ফলক উম্মোচন করা হলো, যা আগামীতে একটি পূর্ণাঙ্গ হাই-টেক পার্ক করা হবে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার’ জয়পুরহাটবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর এক অনন্য উপহার। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদের ব্রেইন চাইল্ড এই প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে একদিকে যেমন বেকারত্ব দূর হবে, একই সঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তিতে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির সুবিধা হবে। আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার থেকে বের হয়ে তরুণ উদ্যোক্তারা আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে যেন ব্যাপক পরিসরে কাজ করতে পারেন সে লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৩৯টি হাই-টেক পার্কও স্থাপন করা হচ্ছে। শনিবার দুপুরে জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার বালাইটের মোড়ে ৮৫ কোটি টাকা ব্যায়ে ৬ বিঘা জায়গার উপর নির্মিত শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ফলক উম্মোচন করা হয়। পরে কালাই সরকারি মহিলা কলেজ মাঠে আয়োজিত প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি বলেন, প্রতিযোগিতার এই যুগে আমাদের তরুণদের টিকে থাকতে হলে প্রযুক্তি শিক্ষার বিকল্প নাই। সরকার এজন্যই একটি প্রযুক্তিনির্ভর জাতি গড়ে তুলতে কাজ করে চলেছে। আমাদের রফতানি খাতেও ডিজিটাল ডিভাইস অবদান রাখতে পারে। ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার’ থেকে ট্রেনিং নিয়ে এখানকার তরুণ- তরুণীরা নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে, অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উপলক্ষ্যে কালাই সরকারি মহিলা কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপির সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ। এছাড়া বাংলাদেশ ডিজেল প্ল্যাান্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ রফিকুল ইসলাম এসপিপি, জেলা প্রশাসক শরীফুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞা, জয়পুরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুর রহমান রকেট, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন মন্ডল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কালাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনফুজুর রহমান মিলন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টুকটুক তালুকদার, কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ফজলুর রহমান, কালাই পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রাবেয়া সুলতানাসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

Previous articleশিবগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণে ১০ জন আহত
Next articleবাংলাদেশের কোন মন্ত্রীর মন্ত্রীত্ব নেই, সব মন্ত্রীর মন্ত্রী হলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা: রব
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।