ওমর ফারুক অনিক,মালদ্বীপ: পদ্মাসেতু উদ্বোধনের সময় যতই ঘনিয়ে আসছিলো ততই মালদ্বীপে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে উদ্দীপনা বিরাজ করছিলো। মালদ্বীপে কর্মরত নানা পেশার মানুষের কাছে পদ্মা সেতু একটি বিস্ময়। এ প্রকল্পটি শুধু বাংলাদেশিদের বিশ্বাসের ভিত রচনা করেনি, বরং যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন বলে বিশ্বাস করেন দীর্ঘদিন মালদ্বীপে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

আজ শনিবার (২৫শে জুন) স্থানীয় সময় সকাল ৯ টায় পদ্মাসেতুর উদ্বোধন ক্ষনে মালদ্বীপে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আয়োজিত হয় প্রবাসীদের জন্য কেক কেটে আনন্দ উৎসব উদযাপন। এমন উৎসব মুখর পরিবেশে মালদ্বীপে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার রিয়ার এডমিরাল এস এম আবুল কালাম আজাদ প্রবাসীদের উল্লেখ করে বলেন, বহুকাঙ্খিত ও প্রত্যাশিত বাঙালির আজন্ম স্বপ্নের পদ্মাসেতু নির্মাণের ক্ষেত্রে সমগ্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা এর অংশীদারিত্ব। তিনি আরও বলেন যার অসীম সাহসিকতা আর অপ্রতিরোধ্য মানসিকতায় বাস্তবায়ণ হয়েছে পদ্মা সেতু, তিনি আর কেউন’ন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুরুতে দূতাবাসের কর্মকর্তা বৃন্দ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধনী অনুষ্ঠান প্রদর্শন ও দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) জনাব মোঃ সোহেল পারভেজ প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বাণী পাঠ করে শোনান। এবং পদ্মা সেতুর ওপর নির্মিত থিম সং ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও মালদ্বীপ আওয়ামিলীগের সভাপতি আলহাজ্ব দুলাল মাতবর এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামিলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ দুলাল হোসেন। এছাড়াও, দূতাবাসে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী বৃন্দ, এনবিএল মানি ট্রান্সফার প্রাইভেট লিমিটের কর্মকর্তা-কর্মচারী বৃন্দ, বাংলাদেশি ব্যবসায়ী, শিক্ষক, চিকিৎসক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার স্থানীয় প্রতিনিধি এবং বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ব্যক্তিবর্গ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনীয় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্যবর হাইকমিশনার বলেন, মাওয়া বা জাজিরা প্রান্তে গিয়ে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দৃশ্য হয়তো দেখার সৌভাগ্য হবে না মালদ্বীপ প্রবাসীদের। কিন্তু হাজার মাইল দূরে থেকে টেলিভিশনের পর্দায় সেই মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায় তারাও দিন গুনছিলেন। আজ সেই দিনক্ষণের উপলক্ষে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দূতাবাসে এসে জড়ো হয়ে উৎসবে মাতেন কর্মজীবি প্রবাসী বাংলাদেশিরা। তিনি আরও বলেন, প্রবাসীদের এখানে বড় একটা ভূমিকা আছে। বিশ্ব বাংলাদেশের যে আত্মমর্যাদা তা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে আজ।

সবশেষে, মান্যবর হাইকমিশনার বলেন, পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের পেছনে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের অবদান অনেক বেশি। আগামীতে পদ্মা সেতুর মতো যে কোনো মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারকে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান তিনি। এছাড়াও উপস্থিত অতিথিবৃন্দদের নিয়ে কেক কেটে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন ও আপ্যায়ন শেষে তিনি প্রবাসীদের সুস্থ থাকা ও সুন্দর জীবন কামনা করে উদ্বোধনীয় অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

Previous articleপদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে জয়পুরহাটে আনন্দ
Next articleপাঁচবিবিতে কোরবানীর জন্য প্রস্তুুত ৬৩ হাজার পশু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।