ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হতে পারেন সাকিব

সদরুল আইন: ক্রিকেটারদের আন্দোলন শেষ হলেও শান্ত হচ্ছে না পরিবেশ। টেস্ট এবং টি-টুয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নিয়ম ভাঙায় আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে বিসিবি।

সেক্ষেত্রে বড় ধরণের জরিমানাসহ নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন এই অলরাউন্ডার।

শনিবার (২৬ অক্টোবর) বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সাংবাদিকদের কাছে বলেছেন, ‘চুক্তি করার আগে সাকিব আমাদের অফিসিয়ালি জানিয়েছে বলে আমাদের রেকর্ডে নাই৷

এটার ব্যাপার আমাদের জানাতে হয়, টেলিকম কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করতে হলে। এটা আমরা দেখছি। সভাপতিও (নাজমুল হাসান পাপন) এটা নিয়ে কথা বলেছেন। আমরাও দেখছি।’

উল্লেখ্য, এদিন দেশের একটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে বিসিবি সভাপতি নাজমুলের একটি সাক্ষাৎকার। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, সাকিব কোনোভাবেই গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তি করতে পারেন না। কেন পারেন না সে বিষয়টি বোর্ডের সঙ্গে তার চুক্তিতে লেখা রয়েছে।

সাকিবের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারেও জানিয়েছেন নাজমুল হাসান, ‘আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব। এরকম ব্যাপারে আমরা কাউকে ছাড় দিতে রাজি নই।

গ্রামীণফোন ও সাকিব দুই পক্ষের কাছেই জানতে চাইব কেনো তারা এমনটা করেছে। আমি এটা ২৩ অক্টোবর শুনেছিলাম। এরপর সাকিব ও গ্রামীণফোনকে লিগাল নোটিশ পাঠাতে বলেছি।

আমরা চাই সাকিব আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ পান। তবে আমরা যদি জানতে পারি এটা সে বোর্ডকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর জন্য করেছে, তাহলে আমরা কঠোর পদক্ষেপ নেব।’

লাইফবয়ের আগে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান স্পন্সর হিসেবে ছিল টেলিকম কোম্পানি রবি। সেই সময় অন্য টেলিকমের সঙ্গে ক্রিকেটারদের চুক্তি থাকায় মোটা অঙ্কের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছিল বিসিবি।

এর ফলে সেই সময় টেলিকম কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করার আগে বোর্ডের অনুমতি বাধ্যতামূলক করে বিসিবি। এবার সেই নিয়ম অমান্য করেই গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাকিব। এর ফলে তাঁকে কারন দর্শানোর নোটিশ পাঠাবে বিসিবি।

সাকিব যদি সুষ্ঠ কোন কারণ না দর্শাতে পারেন, সেক্ষেত্রে জরিমানাসহ নিষেধাজ্ঞার খড়্গ নেমে আসতে পারে। সদ্য শেষ হওয়া আন্দোলনের মূল কাণ্ডারি সাকিবের উপর যে পাপনের ক্ষোভ এখনো কাটেনি সেটা অনুমেয়।

সেক্ষেত্রে বড় ধরণের ঝামেলাতেই পড়তে হতে পারে সাকিব আল হাসান।