বাংলাদেশ ডেস্ক: প্রথম টেস্টে ঐতিহাসিক জয়ের পর ক্রাইস্টচার্চে উজ্জীবিত ছিল টিম বাংলাদেশ। বাউন্সি উইকেটের সামনেও ভালো করার তীব্র বাসনা ছিল টাইগারদের। কিন্তু বিধিবাম। সেই উইকেটে নিউজিল্যান্ড ঠিকই রানের পাহাড় গড়লো। টম লাথাম করলেন ডাবল সেঞ্চুরি, কনওয়ে পেলেন সেঞ্চুরি। ৫২১ রানে ইনিংস ঘোষণা করলো নিউজিল্যান্ড। সেখানে প্রথম ইনিংসের ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১২৬ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। প্রথম দিনের খেলা শেষ। ফলোঅনে বাংলাদেশ। আগামীকাল বাংলাদেশকেই হয়তো আবার ব্যাটিংয়ে পাঠাবে স্বাগতিকরা।

কিউইদের চেয়ে এখনো ৩৯৫ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। তার মানে আরো একটি ইনিংস ব্যবধানে হার কপালে জুটতে যাচ্ছে বাংলাদেশের, তা বুঝতে খুব বেশি বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নেই।

প্রথম ইনিংসের ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৭ রানের মধ্যে টপ অর্ডারের পাচ ব্যাটসম্যানকে হারায় বাংলাদেশ। অভিষেকে শূন্য মারেন ওপেনার নাঈম শেখ। একে একে বিদায় নেন সাদমান ইসলাম (৭), নাজমুল হোসেন শান্ত (৪), মুমিনুল হক (০), লিটন দাস (৮)।

২৭ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ যখন ধুঁকছে তখন সোহানের সাথে জুটি গড়ে দলকে কোনোমতে দাঁড় করানোর চেষ্টা করেন ইয়াসির আলী।

এই জুটিতে দু’জনে তোলেন ৬০ রান। বল খরচ করেন ১০৭টি। ৬২ বলে ৪১ রান করে সোহান ফিরে গিলেও ইয়াসির ছিলেন দৃঢ়। মিরাজকে সাথে করে ঠিকই তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি। ৮৫ বলে সাতটি চারে পঞ্চাশ পূর্ণ করেন তিনি।

এরপর মিরাজ ও তাসকিন দ্রুত ফিরলেও ইয়াসির ছিলেন ক্রিজে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারেননি। ব্যক্তিগত ৫৫ রানে জেমিসনের বলে মিচেলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ইয়াসির। ৯৫ বলের ইনিংসে তিনি হাকান সাতটি চার। তাসকিন ও শরিফুল সমান দুই রান করেন।

বল হাতে আগুন ঝড়ান নিউজিল্যান্ডের পেসাররা। পাঁচ উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট। টিম সাউদি তিনটি ও জেমিসন নেন দুটি উইকেট।

এর আগে প্রথম দিনে এক উইকেটে ৩৪৯ রান নিয়ে সকালে মাঠে নামে নিউজিল্যান্ড। সেঞ্চুরি থেকে এক রান দূরে ছিলেন ডেভন কনওয়ে। পূর্ণ করেন সেঞ্চুরি। টম লাথাম অপরাজিত ছিলেন ১৮৬ রানে। তিনিও পূর্ণ করেন টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। আউট হন ২৫২ রানে। ৩৭৩ বলের ইনিংসে কিউই অধিনায়ক হাকান ৩৪টি চার ও দুটি ছক্কা। টেস্ট ক্যারিয়ারে লাথামের এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস। প্রথমটি ২৬৪ রানের।

বিদায়ী টেস্টে রস টেইলর করেন ২৮ রান। বিদায় নেন ইবাদতের বলে। নিকোলস শূন্য মারলেও শেষের দিকে ৬০ বলে ৫৭ রানের ওয়ানডেসুলভ ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন ড্যারেল মিচেল। ৬ উইকেটে ৫২১ রানে ইনিংস ঘোষণা করে স্বাগতিকরা।

বাংলাদেশের হয়ে শরিফুল ও ইবাদত নেন দুটি করে এবং মুমিনুল হক পান একটি উইকেট।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত
Next articleটিকা নিতে নিবন্ধন লাগবে না শিক্ষার্থীদের: শিক্ষামন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।