কাগজ প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাই থেকে অপহৃত স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পাঁচ দিন পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হল থেকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে র্যাব। র‌্যাব-৫ রাজশাহীর সিপিসি-২ নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. যায়েদ শাহরিয়ার জানান, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সকালে নওগাঁর আত্রাই পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ও একই উপজেলার কাশিয়া বাড়ি গ্রামের রহিদুল ইসলামের মেয়ে মিজানা শারমিনকে (১৪) অপহরণ করা হয়।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করে তাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজিলাতুন্নেছা ছাত্রী হল থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে মিজানা শারমিনকে নাটোর র‌্যাব ক্যাম্পে নিয়ে এসে তার মা তানিয়া বেগমের কাছে হস্তান্তর করা হয়। অপহরণের প্রধান আসামি পলাতক রয়েছে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে র্যাবের ওই কর্মকর্তা।

এদিকে, জাবি প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) ফিরোজ উল হাসান জানান, র্যাব বা পুলিশ কেউই আমাদের সঙ্গে যোগোয়োগ করেনি। তবে একটি মেয়ে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা হলে অবস্থান করছিল বলে একটি ফোন পেয়েছিলাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের এক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে। পরে হলের প্রভোস্টকে জানানো হলে তিনি খোঁজ নিয়ে জানান যে, ওই মেয়ে অভিভাবকের সাথে চলে গেছে।

তিনি আরো বলেন, ওই মেয়েকে অপহরণ করে আনা হয়নি। সে স্বেচ্ছায়ই কারো যোগসূত্রে সেখানে অবস্থান করছিল। কেননা আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হলে কাউকে জোর করে আটকে রাখা সম্ভব নয়। হলের গেট সারাদিন মেয়েদের জন্য খোলা থাকে।