লক্ষ্মীপুরে গরম তেল দিয়ে স্বামীর শরীর পুঁড়িয়ে দিয়েছে স্ত্রী

মো: রবিউল ইসলাম: পারিবারিক বিরোধ কে কেন্দ্র করে ১ম স্ত্রীর দেওয়া গরম তেলে স্বামী দিদার হোসেনের শরীর পুঁড়ে গেছে। এ ঘটনায় দিদার কে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে অবস্থা খারাপ তাকে সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। দিদার লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রুহিতা গ্রামের আবুল খালেকের পুত্র। সদর হাসপাতালে দিদার মাতা রানু আক্তার সাংবাদিকদের জানান, তার ছেলে দিদার হোসেনের সাথে চর রমণী মোহন গ্রামের নুরুল ইসলামের মেয়ে জোহরা বেগমের সাথে বিয়ে হয়। কিন্তু পারিবারিক অশান্তির কারনে ২০১৫ সালে তাদের বিচ্ছেদ ঘটে। এর মাঝে দিদার অন্যত্র আরও একটি বিয়ে । কিন্তু ২য় স্ত্রী থাকার পরও ১ বছর পূর্বে দিদার তার ১ম স্ত্রী জোহরা বেগম নিয়ে আবার সংসার শুরু করে। রোববার রাতে স্ত্রী জোহরা বেগম তার স্বামী রাজমিন্ত্রি দিদার কে চাঁদপুর থেকে খবর দিয়ে লক্ষ্মীপুর বাসায় নিয়ে আসে। শহরের পিটিআই সংলগ্ন বাসায় সোমবার ভোরে ঘুমন্ত স্বামী দিদার শরীরে স্ত্রী জোহরা বেগম ও তার ভাই আলমগীর হোসেন ঘরম তেল ঢেলে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ও তার আতœীয় স্বজন এসে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত দিদার জানান, কোন কারণ ছাড়াই স্ত্রী জোহরা বেগম তার ভাই কে সঙ্গে নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে আমার শরীরে গরম তেল ঢেলে দেয়। সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আনোয়ার হোসেন জানান, গরম তেল জাতীয় পর্দাথ ঢেলে দেওয়ার কারনে দিদারের শরীরের প্রায় ৩৫- ৪০% ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে সোমবার দুপুরে ঢাকা প্রেরণ করা হয়েছে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (নবাগত) আজিজুর রহমান মিয়া জানান, ২য় বিয়ে করাকে কেন্দ্র করে দিদারের শরীরে তার ১ম স্ত্রী গরম তেল ঢেলে দেয়। খবর

পেয়ে ঘটনারস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তবে অভিযোগের ব্যাপারে স্ত্রী জোহরা বেগমের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।