লামায় স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন স্কেলসহ টেকনিক্যাল পদ মর্যাদার দাবী, স্মারকলিপি প্রদান

মো. নুরুল করিম আরমান: বেতন স্কেলসহ টেকনিক্যাল পদ মর্যাদা বাস্তবায়নের দাবীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক বরাবরে স্মারক লিপি দিয়েছেন বান্দরবানের লামা উপজেলায় কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারীরা। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার মাধ্যমে বাংলাদেশ হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের ব্যানারে এ স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। এ সময় বাংলাদেশ হেল্ধসঢ়;থ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের লামা উপজেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোসলেম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য পরিদর্শক নাজিম উদ্দিনসহ উপজেলায় কর্মকরত সকল স্বাস্থ্য সহকারীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচীর সাফল্যের জন্য ‘ভ্যাকসিন হিরো’ সম্মাননায় পুরস্কৃত হওয়ায় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে র‌্যালি বের করেন স্বাস্থ্য কর্মীরা। স্মারক লিপি প্রদানের সত্যতা নিশ্চিত করে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদুল হক বলেন, স্বাস্থ্য কর্মীদের দাবী সম্বলিত স্মারকলিপি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক বরাবরে পাঠানো হবে। স্মারক লিপিতে বলা হয়, গত ৪ দশকের অধিক সময় ধরে জীবন বাজি রেখে মাঠ ঘাট, নদী নালা, খাল বিল, দুর্গম পাহাড়ি এলাকা ও চরাঞ্চলে দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করে আসছেন স্বাস্থ্য সহকারীরা। ফলে আজ দেশে গুটি বসন্তমুক্ত, ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণ, শিশুদের যক্ষা নিয়ন্ত্রণ, পোলিও মুক্ত, হাম-রুবেলা নিয়ন্ত্রণে বিশেষ স্বীকৃতি অর্জন ও হেপাটাইটিস-বি মুক্তি ও নিউমোকক্কাল জনিত নিউমোনিয়া নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হয়েছে। এসব সফলতায় সরকার এমডিজি অর্জন, সাউথ পুরস্কার, দক্ষিণ এশিয়ায় টিকাদান কর্মসূচীতে প্রথম স্থান অধিকার, হাম-রুবেলা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের অগ্রগতি পুরস্কার এবং সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান গ্যাভি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যাকসিন হিরো উপাধিতে ভূষিত করেন। উল্লেখিত কার্যক্রম, অর্জন ও পুরস্কার প্রাপ্তিতে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক, স্বাস্থ্যসহকারীগন নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ভূুমিকা রেখেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দেশি বিদেশী বিশেষজ্ঞদের মতে স্বাস্থ্য কর্মীদের কাজগুলো টেকনিক্যাল ধর্মী। অথচ আজ পর্যন্ত ন্যায্য দাবি বেসতনস্কেলসহ টেকনিক্যাল পদ মর্যাদার দাবী বাস্তবায়ন করা হয়নি। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে তারা আরো বলেন, দাবিগুলো বাস্তবায়নে সরকারের পক্ষ থেকে সুস্পষ্ট ঘোষণা না এলে আগামী ৯ অক্টোবর বান্দরবান জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন ও পুলিশ সুপার বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করা হবে। ১৫ অক্টোবর স্বাস্থ্য মন্ত্রী, স্বাস্থ্য সচিব, মহা পরিচালক ও দাতা সংস্থাকে স্মারক লিপি দেওয়ার পর ২৫ অক্টোবর জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করার পরও সাড়া না পেলে ২ নভেম্বর থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি পালন করবেন কর্মরত স্বাস্থ্য কর্মীরা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ হেল্ধসঢ়;থ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের লামা শাখার সভাপতি মুসলেম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারী বেতন স্কেল ও টেকনিক্যাল পদ মর্যাদাসহ দাবিগুলো কার্যকর করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তৎকালীণ যুগ্ন সচিবকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করে দেন। কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, অর্থ, জনপ্রশাসন ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের একাধিক কমিটির অনূকূল সিদ্ধান্ত

থাকা সত্ত্বেও আজও তা বান্তবায়ন হয়নি। তারা আরো বলেন, স্বাস্থ্য সহকারীরা শিশু ও মাতৃমৃত্যু হ্রাস, যক্ষ্মা, ধনুষ্টংকার, ডায়রিয়া, ম্যালেরিয়ার নিয়ন্ত্রণ, সংক্রামক ও অসংক্রামক ব্যাধি নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন। এছাড়া গুটিবসন্ত, পোলিও নির্মূলে তথা বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী সুনাম অর্জন করেছেন। তাদের ইপিআই কার্যক্রমের ফলে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১২টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন এবং বিশ্ব রোল মডেল হয়েছে। তাই যুক্তিক বিবেচনায় উপস্থাপিত দাবি গুলো আমরা পাওয়ার দাবি রাখি।