শ্বশুর বাড়ি থেকে টাকা এনে না দেওয়ায় ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তাকে কুপিয়ে জখম

তাবারক হোসেন আজাদ: শ্বশুর বাড়ি থেকে ৩ লাখ টাকা এনে না দেওয়ায় মো: মামুন কবির (৩৫) নামে ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর ফরিদগঞ্জ শাখা কর্মকর্তা কে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত কবির কে রায়পুর সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে ওই কর্মকর্তার স্ত্রী মৌসুমী বাদী শ্বশুর রুহুল আমিন, শ্বাশুড়ি মরিয়ম বেগম, দেবর মাহফুজুর রহমান মাজেদ ও মোজাম্মেল হোসেন কে আসামী করে রায়পুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মামুন কবির জানান, শুক্রবার সন্ধায় পূর্ব চরপাতা গ্রামের তোয়াব মোল্লার বাড়িতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে ঘরে অবস্থান করছিলেন। এসময় আমার পিতা রুহুল আমিন ৩ লাখ টাকা শ্বশুর বাড়ি থেকে এনে দেওয়ার জন্য আমাকে চাপ সৃষ্টি করে। আমি প্রতিবাদ করায় আমার পিতা, ভাই ও আমার মাতা আমাকে কুপিয়ে আহত করে। এসময় আমার স্ত্রী মৌসুমী এগিয়ে আসলে তারা তাকে ও মারধর করে ঘরে রক্ষিত ১ লাখ ৬০ হাজার ও স্বর্ণ অলংকার নিয়ে যায় । এর আগেও বিগত ২০১৬ সালে ৮ ফেব্রুয়ারীতে নিজের জমিতে বসতঘর করার জন্য আমার পিতা কে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করি। আমার পিতা সাবেক মেয়র এবি এম জিলানীসহ বাড়ির লোকজন ও গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে প্রায় ১৬ টি মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানি করছে। এর প্রতিবাদ করায় আমাকে দুই বার হামলা চালিয়ে মারধর করে। আমি কোথায়ও বিচার পাইনি। অবশেষে বাধ্য দিয়ে থানায় অভিযোগ দিতে হয়েছে। অভিযুক্ত রুহুল আমিন মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে তার মেয়ে রহিমা বেগম বলেন, আমার ভাই মা-বাবার সাথে দুর্ব্যবহার করায় তাকে মারধর করা হয়েছে। রায়পুর থানার এস আই আবদুল কুদ্দুস জানান, আহত মামুন ও তার মাতা মরিয়ম বেগম উভয় থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।