কলাপাড়ায় স্বামী থাকা অবস্থায় ভূয়া বিধবা সেজে জালিয়াতি, ভুক্তভোগীদের সংবাদ সম্মেলন

এস কে রঞ্জন: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় স্বামী থাকা অবস্থায় ভূয়া বিধবা সেজে জালিয়াতির মাধ্যমে জমি বন্দোবস্ত নেয়ার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন হয়েছে। শনিবার সকাল ১১ টায় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে রাশিদা বেগমের অত্যাচারে ভুক্তোভূগী অসহায় দিনমজুর কামাল মল্লিক এ সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্তি ছিলেন,কলাপাড়া নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসা. শাহীনা পারভীন সীমা, ফোরামের সাধারন সম্পাদক মনোয়ারা বেগম, নারী উন্নয়ন ফোরামের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ,কলাপাড়া প্রেসক্লাব ও কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংবাদিকসহ উপজেলার অন্যান্য সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন। কামাল মল্লিকের পক্ষে লিখিত বক্তব্যটি পাঠ করেন মহিপুর সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য মোসা. বিউটি বেগম। লিখিত বক্তব্যে কামাল মল্লিক জানান, ৬ নং মহিপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের জব্বার দর্জীর স্ত্রী মোসা. রাশিদা বেগম স্বামী জীবিত থাকা অবস্থায় জালিয়াতির মাধ্যমে সরকারী খাস জমি বন্দোবস্ত নিয়েছে। জানা যায়, রাশিদা বেগমের প্রথম স্বামী জামাল গাজী ২০০১ সালে মৃত্যুবরণ করে। ২০০৫ সালে রাশিদা বেগম মো. জব্বার দর্জীর সাথে দ্বিতীয় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। অথচ ২০১২ সালে রাশিদা বেগম প্রথম স্বামী মো. জামাল গাজীর নাম ব্যবহার করে ভূয়া বিধবা সেজে জালিয়াতির মাধ্যমে সরকারী জমি বন্দোবস্ত নেয়। ২০০৫ সালে যার দ্বিতীয় বিবাহ হয় অথচ ২০১২ সালে সাবেক স্বামীর নাম দিয়ে বিধবা সেজে সরকারী জমি বন্দোবস্ত নেয়া হলে কেনো সে দোষী সাব্বোস্ত হবে না জাতির বিবেকের কাছে তিনি এ প্রশ্ন রাখেন। কামাল মল্লিক সংবাদ সম্মেলনে আরো জানান, তিনি মহিপুর ইউনিয়নের নজিবপুর গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডের একজন অসহায় ভূমিহীন দিন মজুর। তিনি দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর যাবৎ খাপড়াভাঙ্গা নদী ভরাট জমিতে ভূমিহীন হিসাবে বসবাস করে আসছে। তার পাশ্ববর্তী সরকারী একটি খাস জমিতে জামাল দর্জীর স্ত্রী মোসা: রাশিদা বেগম খাস জমি বন্দোবস্ত নেয়। বিগত প্রায় ৪ বছর ধরে সরকারী খাস জমি বন্দোবস্ত নেয়া রাশিদা বেগম ও তার পরিবার কামাল মল্লিকের বসবাসের স্থান হতে উচ্ছেদ করার জন্য বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা চালাচ্ছে। রাশিদা বেগম বিভিন্ন ধরনের মিথ্যে মামলা দিয়ে কামাল মল্লিককে জেল পর্যন্ত খাটিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন। গত ২০ ফেব্রুয়ারী রাশিদা বেগমের ছেলে ও স্বামী কামাল মল্লিকের তেতুল গাছ হতে অবৈধভাবে ও জোড় পূর্বক তেতুল পাড়তে আসলে তার স্ত্রী মোসা: হালিমা বেগম তেতুল পাড়তে নিষেধ করলে রাশিদা বেগমের নির্দেশক্রমে তার দুই ছেলে ও স্বামী মিলে কামাল মল্লিকের স্ত্রীকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে বেধরক মারধর করে। হালিমা বেগমের ডাঁক চিৎকার শুনে প্রতিবেশী জামিলা বেগমসহ স্থানীয় লোকজনরা তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অথচ রাশিদা বেগমের পরিকল্পিত মারধরের বিষয়টি কামাল মল্লিক পূর্বেই আঁচ করতে পেরে ১৮ ফেব্রুয়ারী মহিপুর থানায় অবহিত করেন। কোন এক এক প্রভাবশালী মহলের

কারনে থানা পুলিশ তার বিষয়টি আমলে নেয়নি বলে সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন। কোন উপায় না পেয়ে কিছু লোকের পরামর্শে কামাল মল্লিক কলাপাড়া নারী উন্নয়ন ফোরামের নেত্রীবৃন্দের শরনাপন্ন হলে তাদের সহযোগীতায় তার স্ত্রীকে সুস্থ করে তোলেন ও তাদের কাছে সুষ্ঠ বিচারের আবেদন জানান। কলাপাড়া নারী উন্নয়ন ফোরামের নেত্রীবৃন্দ তার দিকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়। লিখিত বক্তব্যে কামাল মল্লিক আরো বলেন, রাশিদা বেগমের জমি তার বসতবাড়ীর জমির মধ্যে নয়। তথাপিও রাশিদা বেগম ও তার পরিবার কামাল মল্লিকের বসতবাড়ীর মধ্যে এসে অবৈধভাবে থাকার চেষ্টা করে ও তাকে উৎখাতের পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। গত ২ মার্চ মহিপুর ভূমি অফিসের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা, কলাপাড়া ভূমি অফিসের একাধিক সার্ভেয়ার, নারী উন্নয়ন ফোরামের নেত্রীবৃন্দ, কলাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন সাংবাদিকগনসহ স্থানীয় ইউপি সদস্য ও শতাধিক লোকজনের সম্মুখে সারাদিন উল্লেখিত দাগের জমির মাপঝোপ করে রাশিদা বেগমের জমির সীমানা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। অথচ তার দু-একদিন পরেই কে বা কাহারা তার ঘেরের মাছ মেরে ফেলেছে সেজন্য রাশিদা বেগম কামাল মল্লিকের পরিবারসহ তার শোভাকাংখিদের জড়িয়ে থানায় মিথ্যে অভিযোগ দায়ের করে হয়রানি করছে। অথচ এ বিষয়ে কামাল মল্লিকসহ অভিযোগে জড়িত কেহই অবগত নয় বলে তিনি জানান। কামাল মল্লিক ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে রাশিদা বেগমের হয়রানীমূলক মিথ্যে অভিযোগ থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য ও একজন অসহায় ভূমিহীন হিসাবে উল্লেখিত বসবাসরত নদী ভরাট জমিতে তিনি যেনো বন্দোবস্ত পেতে পারেন সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রসাশনসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Previous articleচান্দিনায় মুজিববর্ষে শত প্রতিযোগির ম্যারাথন দৌড়
Next articleসাপাহারে মোটরসাইকেল চুরি যেন নিত্য দিনের ঘটনা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।