উল্লাপাড়ায় হারিয়ে গেছে খাল: ওভার ব্রীজের তলায় দোকান, চলে স্মৃতিচারণ

সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌর শহরের মাঝেই বড় ওভারব্রীজ। প্রায় ৬০ বছরের পুরানো ব্রীজটির নিচের খালটি এখন আর নেই। হয়ে গেছে ভরাট। বলতে গেলে মেলেনা খালের অস্তিত্ব। তবে এলাকার বয়সীদের কাছে খালটি স্মৃতিতে আছে। ব্রীজের তলায় এখন চলছে চায়ের দোকান। অনেকেই চায়ের দোকানে বসে ব্রীজ আর খাল নিয়ে অতীত স্মৃতিচারণ করে থাকেন। উল্লাপাড়া শহরের মাঝে ফুলজোর নদীর শাখা খালটির উপর ১৯৬০ সালে বড় ধরনের ওভারব্রীজ টি নির্মান করা হয়। এ ব্রীজ হয়ে নগরবাড়ি সড়ক পথে সব ধরনের যানবাহন চলাচল করতো। প্রায় ২৬ বছর আগে উল্লাপাড়ায় নগরবাড়ি বাইপাস মহাসড়ক নির্মান হওয়ার পর সওজ বিভাগের এ সড়ক পথে ব্রীজ বেয়ে এখন আর ভারী যানবাহন চলাচল করে না। ব্রীজের নিচে খালের বেশ গভীরতা ছিল বলে জানা যায়। ভরা বর্ষায় পুরো খাল পানিতে ভরপুর থাকতো। চলতো নৌকা। শুকনো মৌসুমেও পানি থাকতো খালটিতে। স্থানীয় ভাবে পরিচিত ওভারব্রীজটির তলার খালটি দিনে দিনে ভরাট হয়ে গেছে। এখন আর সহজে মেলানো যায় না এ ব্রীজের তলায় খাল ছিল। প্রায় তিন বছর ধরে ব্রীজের তলাতেই একটি চায়ের দোকান হয়েছে। ব্রীজটি হয়েছে দোকানের ছাউনী। সব সময় কমবেশি ভিড় চায়ের দোকান টিতে জমে থাকে। এলাকার প্রবীন অনেকেই এ দোকানে বসে খালটির অতীত স্মৃতিচারণ করে থাকেন। এছাড়া ব্রীজটির পাশ দিয়ে খাল আড়া আড়ি কাঁচা বাজারের সাে সংযুক্ত করে একটি সড়ক পথ স্থানীয় পৌরসভা থেকে নির্মান করা হয়েছে। স্থানীয় ৮ থেকে ১০ জনের সাথে আলাপকালে জানান, এখকার অবস্থায় যারা খালটি দেখেনি তারা বিশ্বাস করবে না এ ব্রীজের তলা দিয়ে খাল বেয়ে ছিল, চলাচল করতো নৌকা। চায়ের দোকানী বাবু মিয়া জানান, তিনি প্রায় তিন বছর হলো দোকান চালাচ্ছেন। খালটি দেখেননি। তবে অনেকেই এখানে এসে ব্রীজ আর খালের স্মৃতিচারণ করে থাকেন।

Previous articleচান্দিনায় শিয়ালের মাংস রান্না : ভ্রাম্যমাণ আদালতে জেল ও জরিমানা
Next articleমানবেতর জীবনযাপন: সাপাহারে ৩ বছরেও বেতন-ভাতাদি পাননি প্রভাষক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।