কলাপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা পাচ্ছে ১২ হাজার পরিবার

এস কে রঞ্জন: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নভেল করোনা ভাইরাস জনিত দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের আওতায় ১২ হাজার পরিবার পাচ্ছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের ২০ কেজি হারে খাদ্য সহায়তা। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়’র দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান বিভাগ থেকে ইতোমধ্যে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদেরকে সুবিধাভোগীদের নামের তালিকার এক্স এল শীট তৈরী করে ই-মেইলে প্রেরনের জন্য বলা হয়েছে। যা বর্তমানে প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান বিভাগ সূত্র।

সূত্রটি আরও জানায়, করোনা সংক্রামক পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের পরিসর বৃদ্ধি করার জন্য নির্দেশনা প্রদানের পর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয় উপজেলার ১২ ইউনিয়নের ১২ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদানের পদক্ষেপ নিয়েছে। এতে চাকামইয়া ইউনিয়নে ৮৯০, টিয়াখালী ৮১০, লালুয়া ৯৫০, মিঠাগঞ্জ ৭০০, নীলগঞ্জ ১৬০০, মহিপুর ৯৫০, লতাচাপলি ১৫০০, ধানখালী ৯৫০, ধূলাসার ১১৫০, বালিয়াতলি ১০১০, ডালবুগঞ্জ ৬১০, চম্পাপুর ইউনিয়নের ৮৮০ পরিবার বিনামূল্যে ২০ কেজি হারে খাদ্য সহায়তা পাচ্ছে। সুবিধাভোগীদের নামের তালিকা, জাতীয় পরিচয় পত্র ও মুঠো ফোন নম্বর সম্বলিত, এক্স এল শীট তৈরী করে অনলাইনে প্রেরনের জন্য বলা হয়েছে। যা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ে প্রেরনের পর ডাটাবেজ অনুযায়ী কার্ড প্রদান করা হবে। এরপর কার্ডধারী প্রতি পরিবার পাবে ২০ কেজি হারে খাদ্য সহায়তা। তালিকা তৈরীতে ওয়ার্ড দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি ও ইউনিয়ন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির অনুমোদন নেয়ার নির্দেশনা রয়েছে। এছাড়া সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচী ও খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর সুবিধাভোগী পরিবারকে বাদ দিয়ে নিম্ন আয়ের দুস্থ, অসহায়, ভবঘুরে, দিনমজুর, ঠেলা চালক, কৃষি শ্রমিক, মৎস্য শ্রমিক, মাটি কাটা শ্রমিক, রিক্সা চালক, ভিক্ষুক, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা দুস্থ পরিবারের নামের তালিকা অন্তভুর্ক্ত করে তা প্রেরনের জন্য বলা হয়েছে। যাতে করোনা পরিস্থিতিতে কর্ম বিমূখ হয়ে পড়া একটি পরিবারও অভ্যুক্ত না থাকে।

উপজেলা দুর্যোগ ও ত্রান বিভাগের কর্মকর্তা তপন কুমার ঘোষ জানান,প্রধান মন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা বিতরনে ১২ ইউনিয়নের ১২ হাজার সুবিধা ভোগীর নামের তালিকা, জাতীয় পরিচয় পত্র ও মুঠো ফোন নম্বর সম্বলিত, এক্স এল শীট তৈরী করে ই-মেইলে প্রেরন প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ইতোমধ্যে চাকামইয়া ইউনিয়ন ব্যতীত ১১ ইউনিয়নের তালিকা অনলাইনে আপলোড করা হয়েছে। এতে কিছু আইডি নম্বর ও ফোন নম্বরে সমস্যা দেখা দেয়ায় তা সংশোধন করা হচ্ছে। চাকামইয়া ইউনিয়নের সুবিধাভোগীদের নামের তালিকা অভিযোগের প্রেক্ষিতে অধিকতর স্বচ্ছতার সাথে করা হচ্ছে। দু’এক দিনের মধ্যে ১২ হাজার দুস্থ পরিবারের নামের তালিকা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের ই-মেইলে প্রেরন করা হবে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহম্মদ শহিদুল হক জানান,সুবিধা ভোগী দুস্থ পরিবারের নামের তালিকা তৈরী ও প্রেরন প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। যা দুর্যোগ মন্ত্রনালয় প্রাপ্ত হয়ে সুবিধাভোগীদের জন্য কার্ড প্রেরনের পর বিতরন শুরু করা হবে।’