সাপাহারে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম, পলাতক স্বামী গ্রেফতার

বাবুল আকতার: নওগাঁর সাপাহারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দায়েরকৃত মামলার পলাতক আসামী আব্দুস সালাম(৩৮) কে থানা পুলিশ আটক করেছে। উল্লেখ্য যে –বিয়ের পর হইতে যৌতুকলোভী পাষন্ড স্বামী আব্দুস সালাম যৌতুকের টাকার জন্য প্রায়ই সময় স্ত্রী ময়না খাতুন কে শারিরীক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতো। ঘটনার দিন গত ২৫ জুলাই দুপুরে সদরের নসীব সিনেমা হলের পার্শ্বে অবস্থিত জৈনক সুলতানের মেস বাড়ির ভাড়াটিয়া ময়না খাতুন তার বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা না নিয়ে বাসায় ফিরলে পাষন্ড স্বামী আব্দুস সালাম কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সহযোগীদের নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে স্ত্রী ময়না খাতুন কে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় স্ত্রী ময়নার শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে শতাধীক খত সৃষ্টি করেও হত্যার চেষ্টা চালায়। স্থানীয় লোকজন ওই মেসবাড়ি থেকে আহত ময়না খাতুন কে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে আসে। চিকিৎসকগণ ওই গৃহবধুর শরীরের বিভিন্ন স্থানে প্রায় শতাধীক সেলাই দেয় ও জরুরী চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ

ঘটনায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধু ময়নার মা বাদী হয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে সাপাহার থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী-২০০৩ (ধারা-১১(ক)(খ)/৩০) মোতাবেক একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার ১ নং আসামী আব্দুস সালাম ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলো। গত বুধবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ সদরের উচাডাঙ্গা মোড় থেকে তাকে গ্রেফতার করে ওই দিনই নওগাঁ কোর্টে প্রেরণ করে। এবিষয়ে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, যে গৃহবধু ময়না কে নির্যাতনকারীদের দ্রুত গ্রেফতারে পুলিশী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।