এবার হবিগঞ্জে মা-মেয়েকে গণধর্ষণ

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: এবার হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে মা ও মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। শুক্রবার (০২ অক্টোবর) রাতে উপজেলার রানীগাঁও ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকায় এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

শনিবার (০৩ অক্টোবর) এ ঘটনায় চুনারুঘাট থানায় মামলা করা হয়েছে। তবে রোববার (০৪ অক্টোবর) বিকেল পর্যন্ত ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার এজাহার ও পুলিশ জানায়, চুনারুঘাট উপজেলার রানীগাঁও ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার গরমচড়ি ফরেস্ট মাজারসংলগ্ন একটি বাড়িতে শুক্রবার গভীর রাতে প্রবেশ করে একদল যুবক।

ঘরে ঢুকে মা-মেয়েকে বেঁধে ফেলেন তারা। পরে স্বর্ণের গহনা, টাকা-পয়সা, গরু ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র লুটপাট করেন যুবকরা। লুটপাট শেষে মা (৪৫) ও মেয়েকে (২৫) গণধর্ষণ করে পালিয়ে যান তারা।

ডাকাতরা চলে গেলে মা-মেয়ের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন। প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) আব্দুল মালেক বলেন, স্বর্ণের গহনা, টাকা-পয়সা লুটপাট করে মা ও মেয়েকে গণধর্ষণ করেছে ডাকাতরা। ডাকাত দলের এক যুবককে চিনতে পেরেছেন ভুক্তভোগীরা। এজন্য তারা মামলা করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চুনারুঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) চম্পক দাম বলেন, বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে মা-মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, মামলার আসামিদের গ্রেফতারের স্বার্থে নাম-ঠিকানা গোপন রেখেছি আমরা। বিষয়টি তদন্ত করে ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করা হবে।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়। এ ঘটনায় আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।