মুলাদী পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে আওয়ামীলীগের ৮ নেতা মাঠে

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদী পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও দলীয় মনোনয়ন পেতে মাঠে নেমেছেন আওয়ামীলীগের ৮ নেতা। এদের মধ্যে ৭ প্রার্থী জোটবদ্ধ হয়ে বর্তমান মেয়র মোঃ শফিক উজ্জামান রুবেলের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন এবং বিভিন্ন ওয়ার্ডে কর্মী সমাবেশ করে জনমত যাচাই করছেন। আগামী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেতে বিভিন্ন ওয়ার্ডে সভা সমাবেশ করে ভোট চাইছেন বর্তমান মেয়র শফিক উজ্জামান রুবেল। এছাড়া মনোনয়ন পেতে মাঠে নেমেছেন মুলাদী পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলমগীর হোসেন হিরণ হাওলাদার, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আ ঃরব মুন্সী, উপজেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক দিদারুল আহসান খান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অহেদুজ্জামান আনোয়ার তালুকদার, কেন্দ্রিয় যুবলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব ছালেহ উদ্দীন হাওলাদার, মোসলেম উদ্দীন বয়াতী। তবে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দৌড়ে বর্তমান মেয়রই এগিয়ে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন নেতাকর্মীরা। এছাড়া বিএনপি, জাপা, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ ও ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) প্রার্থীরাও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইছেন। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলে মুলাদী পৌরসভায় প্রার্থী হতে পারেন বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আবিদুর রহমান হুমায়ুন, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আল মামুন, কেন্দ্রিয় বিএনপি নেতা মাহমুদ খান। জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থীর আলোচনায় রয়েছেন উপজেলা জাপা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন-অর-রশিদ খান। তবে বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় এমপি গোলাম কিবরিয়া টিপু প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মেয়র শফিক উজ্জামান রুবেল মনোনয়ন পেলে জাপা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। ইসলামি আন্দোলনের প্রার্থী হতে পারেন উপজেলা ইশা আন্দোলনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম, পৌরসভা ইসলামি আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সোলায়মান হোসেন। এছাড়া ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) সভাপতি সেলিম আহমেদ চৌকিদারও প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শওকত আলী জানান, চলতি বছরের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে প্রথম ধাপে মুলাদী পৌরসভা নির্বাচন হতে পারে এবং সেই হিসেবেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।