বিমল কুন্ডু: সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর পৌরএলাকার কান্দাপাড়া মহল্লার বাসিন্দা খন্দকার নাজমুল হক তার মেয়ের জামাতা রাকিমুল আল মামুন রানার বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবিতে তার মেয়ে নাফিসা হক মৌকে অমানবিক নির্যাতন ও উপর্যুপরি প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি তিনি জামাতা মামুন রানার বিরুদ্ধে প্রতারণা, জালিয়াতি ও অসামাজিক কার্যকলাপের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনেছেন। আজ বুধবার সকালে নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, উপজেলার ডাকবাংলোপাড়া রোডের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে রাকিমুল আল মামুন রানা সাথে তার মেয়ে নাফিসা হক মৌ এর বিয়ে হয়। কিছুদিন পর তিনি জানতে পারেন তার মেয়ে জামাই মামুন রানার ঢাকায় বৈধ কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নেই। বিভিন্ন সরকার আমলে প্রভাবশালীদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে প্রতারণা, জালিয়াতি, মামলা-মোকদ্দর্মার তদবির ও নানা অসামাজিক কার্যকলাপের মাধ্যমে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়াই তার প্রধান পেশা। এসব ঘটনা জানাজানির পর তিনি ও তার মেয়ে মামুন রানাকে অবৈধ কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে তার মেয়ের উপর শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করতে থাকে। এক পর্যায়ে গত বছরের ২৩ নভেম্বর তার মেয়ের কাছে রানা ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে সে তার মেয়েকে শারীরিক নির্যাতন করে ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার মেয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে শাহজাদপুর থানায় একটি জিডি করে। যার জিডি নং- ১৫৭৩। জিডি এন্ট্রির পর পুলিশ দুই নাবালক সন্তানসহ মেয়েকে বাবার হেফাজতে দেন। সংবাদ সম্মেলনে নাজমুল হক আরও জানান, গত ১৫ জানুয়ারী টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলা রাকিমুল আল মামুন রানা ওরফে কয়েল রানার প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের বিষয়ে একটি স্বচিত্র প্রতিবেদন সম্প্রচার করে। এঘটনার পর মামুন রানা আর ক্ষিপ্ত হয়ে তার ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা দায়েরসহ উপর্যুপরি ভয়- ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে। নারী নির্যাতনের মামলা করেও তিনি কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না। উপরন্তু মামুন রানা প্রাণনাশের ভয় দেখিয়ে জোড়পূর্বক আমার নিজস্ব বাড়ী ও আমার

স্ত্রীর পৈত্রিক সম্পত্তির অংশ দানপত্র দলিল করে নিয়েছে। এসব ঘটনায় তিনি থানায় তিনটি জিডি করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে নাফিসা হক মৌ তার লিখিত বক্তব্যে জানান, আমার স্বামী রাকিমুল আল মামুন রানা বিএনপি’র আমলে তারেক জিয়া ও কোকোর সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়েছেন। আবার বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের আমলেও মন্ত্রী- এমপিদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে একই কায়দায় তার প্রতারণা ও জালিয়াতি অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। এখনও তারেক জিয়ার নিয়মিত তার যোগযোগ রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে খন্দকার নাজমুল হক ও তার মেয়ে নাফিসা হক মৌ অবৈধ ব্যবসায়ী মামুন রানার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে জোড় দাবি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে মোবাইল ফোনে রাকিমুল আল মামুন রানার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তহীন দাবি করে জানান, আমার শ্বশুর ব্যবসায়ীক সুনাম নষ্ট করে আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।