বাংলাদেশ প্রতিবেদক: সুদের টাকা দিতে না পারায়, গাজীপুরে মা-মেয়েকে একসঙ্গে গাছে বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। একঘণ্টা পর স্থানীয় ইউপি সদস্য তাদের সেখান থেকে উদ্ধার করেন।

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে কালিয়াকৈরের সিরাজপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মারপিট করতে করতে বাসা থেকে টেনে হিঁচড়ে মমতাজকে বের করেন কয়েকজন। এরপর রাস্তার পাশে গাছে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন। স্কুল পড়ুয়া মেয়ে নির্যাতনের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করতে গেলে, শুরু হয় তার ওপরও অত্যাচার। এক পর্যায়ে মায়ের সঙ্গে একই রশিতে আটকে রাখা হয় মেয়েকেও।

পরে স্বজনরা জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন করলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন। ওইদিন বিকেলেই আটজনের নাম উল্লেখসহ বেশ কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী পোশাক শ্রমিক।

ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবুজ নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে গাজীপুর কালিয়াকৈর থানার অফিসার ইনচার্জ মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, বাকিদের ধরতে তৎপরতা শুরু হয়েছে। আসামিদের খুব দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

দেড় মাস আগে প্রতিবেশী গফুরের স্ত্রী কুলছুমের কাছ থেকে ১৭ হাজার টাকা সুদে নেন মমতাজ। সম্প্রতি গ্রাম্য সালিশে টাকা ফেরত দিতে একমাস সময় বেঁধে দিলেও এর আগেই এমন নির্যাতনের শিকার হন তারা।