আব্দুল লতিফ তালুকদার: উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের যমুনা নদীর অংশে মালিকানা আবাদি জমি খননের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে চরাঞ্চলের ভুক্তভোগী কৃষকেরা। শনিবার (২০ মার্চ) সকাল ১০ টায় ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে গাবসারা ও অর্জুনা ইউনিয়নের ভুক্তভোগী কৃষকদের আয়োজনে ঘন্টা ব্যাপি এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে যমুনা নদীতে ড্রেজিং এর মাধ্যমে অবৈধভাবে আমাদের মালিকানাধীন আবাদী জমি খনন করা হচ্ছে। উচ্চ আদালত ড্রেজিং বন্ধের নির্দেশ দিলেও সেই নির্দেশ অমান্য করে এখনো অবৈধভাবে চলছে ড্রেজিং। প্রশাসন কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি এখনও । উচ্চ আদালতের নির্দেশ মেনে অবিলম্বে ড্রেজিং বন্ধের দাবি জানান ভুক্তভোগী কৃষকরা। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তাদের দাবি মেনে নেওয়া না হলে অনশন কর্মসূচির ঘোষনা দেন এবং তিন দফা দাবি জানান।দাবি গুলো হল, উচ্চ আদালতের নির্দেশ মেনে অবিলম্বে ড্রেজিং বন্ধ করা হোক। যে সকল কৃষকের জমি খনন করা হয়েছে, ফসল নষ্ট করা হয়েছে, তার ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হোক। বিধি মোতাবেক জমি অধিগ্রহণ করে ড্রেজিং করা হোক। মানববন্ধন উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুর রহমান খান, হাজী ইসমাইল হোসেন খান কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আব্দুস ছাত্তার খান, মোফাজ্জল হোসেন সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ তালুকদার সহ যমুনা চরাঞ্চলের শতাধিক কৃষক। মানববন্ধন শেষে সকাল ১১ টায় ভূঞাপুর প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে এক সংবাদ সম্মেলন করেন মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী ভুক্তভোগী কৃষক বৃন্দ। সম্মেলনে ভূক্তভোগীদের পক্ষে আব্দুস সাত্তার লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গণি বলেন, এখনো উচ্চ আদালতের কোন নির্দেশনা আমাদের হাতে আসেনি। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা হাতে পেলেই বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Previous articleচৌহালীতে মৎস্যজীবিদের মাঝে চাল বিতরন
Next articleরায়পুরে ৫০টি পরিবার ৭দিন যাবত অবরুদ্ধ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।