জয়নাল আবেদীন: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে রংপুর বিভাগে প্রচারণামূলক ‘জনউদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন’ শুরু করেছেন স্বাস্থ্য বিভাগ। তিন দিনব্যাপী ক্যাম্পেইনে রংপুর বিভাগের আট জেলায় ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার রোধ করাসহ সঠিক নিয়মে মুখে মাস্ক পরিধান, স্বাস্থ্যবিধি মানা ও স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টিতে ২ হাজার ৩শ৪০টি পথসভার আয়োজন করার উদ্দ্যোগ নিয়েছেন। সোমবার দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয়ের সম্মুখে ‘জনউদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন’ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা।উদ্বোধনকালে মেয়র মোস্তফা বলেন, আমাদের উদাসীনতার কারণে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ার আশংকা করা হচ্ছে। সরকার সর্বত্বক চেষ্টা করছে করোনায় মানুষের প্রাণহানি ও আক্রান্ত রোধে। কিন্তু জনসাধারণ করোনার ভীতি ভুলে যেভাবে চলাফেরা করছে তা ভয়ংকর পরিস্থিতির ইঙ্গিত দিচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে রংপুরকে সেভ রাখতে আমরা ক্যাম্পেইন শুরু করছি। সবার মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়ানোসহ করোনা আতিমারীতে করণীয় সম্পর্কে অবগত করা হবে।মেয়র আরও বলেন, বর্তমানে রংপুরে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু রংপুর বিভাগে ভারতীয় সীমান্ত ও স্থলবন্দর থাকায় আমরা নিরাপদ নই। এখন আমাদেরকে সাবধান হতে হবে। সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ভারতের দিকে তাকিয়ে দেখেন, করোনা নিয়ে অবহেলা করার কোনো সুযোগ নেই।বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ আহাদ আলী বলেন, সরকারের কঠোর বিধিনিষেধের সুফল হিসেবে করোনায় আক্রান্তের হার এখন নিম্নমূখী। এই সফলতা ক্রামাগত অব্যাহত ধরে রাখা বড় চ্যালেঞ্জ। এখন আক্রান্তের হার ৫% এর নিচে বা শুন্যে নামিয়ে আনতে ব্যাপক জনউদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন আবশ্যক। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের ভ্যারিয়েন্ট মারাত্নক ক্ষতিকর ও রংপুর বিভাগে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা অনেক বেশি। করোনা প্রতিরোধে এই মূহুর্তে মুখে সঠিক নিয়মে মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিকল্প নেই।তিনি আরও বলেন, ক্যাম্পেইনে রংপুর সিটি করপোরেশনে ৪টি, বিভাগের আট জেলা সদরে ১৬টি, ৫৮ উপজেলা সদরে একটি করে মোট ৭৮টি টিম প্রতিদিন দশটি করে সচেতনতামূলক পথসভা করবে। জনউদ্বুদ্ধকরণ পথসভা শেষে প্রতিটি এলাকায় করা হবে মাইকিং। তিনদিনে মোট ২ হাজার ৩শ৪০ পথসভায় স্বাস্থ্য বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছাড়াও স্বাস্থ্যকর্মীরা অংশ নেবেন।উদ্বোধনী কার্যক্রমে করোনা প্রতিরোধে জনউদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন কমিটির আহবায়ক ও রংপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায়, রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডাঃ জওয়াহেরুল আনাম সিদ্দিকী, রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান তাজসহ স্বাস্থ্য বিভাগ, সিটি করপোরেশন ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ১০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত
Next articleবেনাপোলে স্বর্নের বারসহ পাচারকারী আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।