শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে মানব দেহের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ কিডনি পাচার চক্রের দুই জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা যায়, জয়পুরহাট জেলার কালাই উপজেলার বফলগাড়ী গ্রামের গ্রেপ্তারকৃত দুই জন আসামী দুলু মিয়া ওরফে ডংকার ও একই গ্রামের নজমুল ওরফে কেরামত আলী আক্কেলপুর উপজেলার গোলাম মোস্তফাসহ আরো অনেকের কাছে কিডনি ক্রয়ের প্রস্তাব দিলে তারা প্রথমে গ্রামের ডলার মাষ্টারকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে। পরে বিসয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান শামীমকে জানালে চেয়ারম্যান বিষয়টি কিডনি পাচার চক্রের সদস্য সন্দেহে ক্ষেতলাল থানা পুলিশকে ফোনে জানায়।
ক্ষেতলাল থানা পুলিশ খবর পেয়ে মামুদপুর ইউনিয়ন হতে তাদেরকে গ্রেফতার করে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানা হাজতে প্রেরণ করে।
পরে ক্ষেতলাল থানায় আক্কেলপুর উপজেলার গ্রামের গোলাম মোস্তফা বিকেল ৩ টায় ১৯৯৯ সালের মানব দেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইন এর ১০ (১) তৎসহ ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের করেন।
গ্রেফতারকৃত আসামি দুজন হচ্ছে, জয়পুরহাট জেলার কালাই উপজেলার বফলগাড়ি গ্রামের মৃত তমেজ আলীর ছেলে দুলু মিয়া ওরফে ডংকার (৬৪) এবং একই গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে নজমুল ওরফে কেরামত আলী ( ৪৫)।
ক্ষেতলাল থানা অফিসার ইনচার্জ ( তদন্ত) শাহ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলা ২ নং আসামী কেরামত আলী ৪ বছর পূর্বে কিডনি বিক্রি করেছে। এখন অন্যদের কিডনি চক্রের সদস্য হিসেবে দালালের ভূমিকায় কাজ করছিল।

Previous articleফাইজারের টিকা আসার সিদ্ধান্ত ফের পরিবর্তন
Next articleঅদক্ষতা ও উদাসীন ভাবে নদী খনন করায় এবার ক্ষতিগ্রস্থ হলো পাঁচবিবির শিমুলতলী ব্রীজ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।