এস কে রঞ্জন: পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার বাবুল সিকদার (৪৫) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে কিশোরীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ২২ জুন মঙ্গলবার রাতে ওই কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে বাবুলকে প্রধান আসামী করে মহিপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। বাবুল লতাচাপলী ইউনিয়নের ফাঁসিপাড়া গ্রামের মো.রহিম শিকদারের ছেলে। সে বর্তমানে পলাতক রয়েছে। এঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্য আবুল হোসেন কাজীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত বাবুল সিকদারকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

ওই কিশোরীর পারিবারিকে সূত্র জানা গেছে, কিশোরীর মা কুয়াকাটায় একটি খাবার হোটেলে কাজ করেন। তার পিতা দ্বিতীয় বিয়ে করে মহিপুর বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। গত রবিবার সকালে ওই কিশোরীর মা কাজের উদ্দেশ্যে কুয়াকাটা যান। এ সুযোগে ওই কিশোরীকে ঘরে একা পেয়ে প্রতিবেশী বাবুল তাকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এসময় ওই কিশোরী ও তার ছোট ভাইয়ের ডাক চিৎকার স্ানীয়রা এগিয়ে আসলে বাবুল দৌড় দিয়ে পালিয় যায়। এঘটনা ইউপি সদস্য আবুল হোসেন কাজীকে অবহিত করেল আবুল হোসেন কাজী শালিস মিমাংসার কথা বলে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালান। এর ফলে থানায় অভিযোগ দিতে সময় হয়েছে বলে কিশোরীর পরিবার জানান।

এদিকে অভিযুক্ত বাবুল সিকদার জানান, ইউপি সদস্য আবুল হোসেন কাজী সমযোতার কথা বলে কিশোরীর পরিবার ও থানার ওসিকে দেবার জন্য ৪০ হাজার টাকা নিয়েছে। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেন আবুল হোসেন কাজী।

মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, কিশোর বাবা লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। বাবুলকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Previous articleহারিয়ে যাওয়ার ২০ বছর পর পরিবারকে ফিরে পেল শাহনাজ
Next articleপরকীয়া: রাজারহাটে রাতের আঁধারে প্রেমিক-প্রেমিকা ধরা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।