গিয়াস উদ্দিন রনি: মেহেদীর রং না মুছতেই বিয়ের মাত্র ১৫দিনের মাথায় লাশ হলো ফাতেমা বেগম (১৭) এক নববধূ।

শনিবার (২৬জুন) বিকেলে ৫টার দিকে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তার লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফাতেমার স্বামী মো. শরীফকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ।

এরআগে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের মহিদীপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম মিস্ত্রী বাড়ির ভাড়া বাসায় গ্রিলের সঙ্গে গলায় ফাঁসি দিয়ে আত্মেহত্যা করে বলে দাবি করে নিহতের। পরে ওই বাড়ির লোকজন ফাতেমাকে উদ্ধার করে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

নিহত গৃহবধূর বাড়ির লক্ষীপুর সদরের চর রমনী গ্রামে। সে ওই গ্রামের মৃত আবদুল মালেকের মেয়ে। গত ১৫দিন আগে একই এলাকার শরীফের সঙ্গে ফাতেমার বিবাহ হয়। শরীফ পেশায় একজন মাটি কাটার শ্রমিক এবং লক্ষীপুর জেলার আবদুল বাছেদের ছেলে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধা বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, বিয়ের বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। ওই কলহের জেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে বলে নিহতের স্বামী শরীফ জানায়। খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে ময়না তদন্তের জন্য গৃহবধূর ফাতেমার মরদেহ থানায় এনে রাখা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে এ বিস্তারিত জানা যাবে। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী শরীফকে আটক করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Previous articleসক্রিয় রাজনীতিতে নামার ঘোষণা দিলেন এরশাদ পত্নী বিদিশা
Next articleকেশবপুরে আদালত উপেক্ষা করে জমি দখলের চেষ্টা: আহত ৬, আটক ১
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।