ওসমান গনি: কুমিল্লার চান্দিনায় তের বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে আবুল বাশার (৫০) নামে এক মসজিদের ঈমাম।

এ ঘটনায় সোমবার (২৬ জুলাই) চান্দিনা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন মাদ্রাসা ছাত্রীর পিতা জহিরুল ইসলাম। অভিযুক্ত আবুল বাশার উপজেলার বাতাঘাসী ইউনিয়নের শব্দলপুর গ্রামের মুন্সিবাড়ির মৃত মোতালেব মুন্সীর ছেলে। তিনি সুহিলপুর ইউনিয়নের তীরচর নয়াবাড়ি মসজিদের ঈমাম।

জানা যায়, ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ানোর সময় গত ২২ জুলাই ফুসলিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় আবুল বাশার। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে কোথাও না পেয়ে পরের দিন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে ছাত্রীর পরিবার।

টানা দুই দিন অজ্ঞাত স্থানে মেয়েটিকে আটকে রেখে ধর্ষণ করে আবুল বাশার। এক পর্যায়ে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে দুই দিন পর গত ২৪ জুলাই আবুল বাশার তার ভাই আবু ইউসুফকে খবর দিয়ে তার হাতে মেয়েটিকে তুলে দিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের সহযোগিতায় অসুস্থ অবস্থায় মেয়েটিকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তারের পরামর্শে কুমিল্লার ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়।
এ ঘটনায় মাদ্রাসা ছাত্রীর পিতা বাদি হয়ে চান্দিনা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।
চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামসুদ্দিন মোহাম্মদ ইলিয়াছ জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Previous articleর‌্যাবের হাতে গ্রাম পুলিশ হত্যা মামলার আসামি আটক
Next articleকালাইয়ে চাল কলের নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ, ধর্ষক গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।