আব্দুদ দাইন: পাবনার সাঁথিয়ায় র্স্মাট মোবাইল ফোন দেখতে না দেওয়ায় নিজের ছোট ভাই ও বড় বোনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করছে সৈকত নামে এক যুবক। নৃশংস এ ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে উপজেলার আর- আতাইকুলা ইউনিয়নের গাঙ্গুহাটি গ্রামে। সৈকত গাঙ্গুয়াহাটি গ্রামের খন্দকার ইব্রাহিমের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানাযায় সোমবার রাত পৌনে ৯টার দিকে উপজেলার আর- আতাইকুলা ইউনিয়নের গাঙ্গহাটি গ্রামের খন্দকার ইব্রাহিম হোসেনের ছেলে সৈকত (২০), সৌরভ (১৮) ও একমাত্র কন্যা ইভা (২২) তাদের ঘরে মোবাইল ফোন দেখতে থাকে। পিতা ইব্রাহিম তাদের মোবাইল দেখতে নিষেধ করায় পিতার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সৈকত। কন্যা ইভা ও ছোট ভাই সৌরভ সৈকতের কথার প্রতিবাদ করলে সৈকত ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘরে থাকা ধারালো হাসুয়া দিয়ে সৌরভ ও ইভার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতারী ভাবে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মুমূর্ষ অবস্থায় দু’জনকে উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেও শারীরিক অবস্থা আরও আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ২ভাইবোন সৌরভ ও ইভাকে ঢাকা হাসপাতালে রের্ফাড করেন। খবর পেয়ে আতাইকুলা থানা পুলিশ সোমবার রাতেই ধারালো অস্ত্রসহ দূর্ধর্ষ সৈকতকে বাড়ি থেকে আটক করে। আতাইকুলা থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সৈকত থানা হেফাজতে রয়েছে। অভিযোগ দিলে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হবে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি। পিতা ইব্রাহিম সাংবাদিকদের জানান তার ছেলে সৈকত কিছুদিন ধরে মানষিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছে।

Previous articleমুলাদীতে ইসলামি আন্দোলনের বিনামূল্যে অক্সিজেন সার্ভিস উদ্বোধন
Next articleনলছিটিতে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের উদ্বোধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।