আব্দুল লতিফ তালুকদার: ৫ মাসের ব্যবধানে অলৌকিকভাবে মেয়ে থেকে ছেলেতে রূপান্তরিত হয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করলেন লাবনি আক্তার নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। তার বয়স এখন (১৫)।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইল গোপালপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নে লুডুরচর পশ্চিম পাড়া গ্রামে। শুক্রবার (৮ অক্টোবর) সকাল থেকে এ ঘটনা জানাজানি হলে এলাকা জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। মেয়ে থেকে ছেলেতে রূপান্তরিত হওয়া লাভনি আক্তারকে এক নজর দেখতে প্রতিদিন দেশের দূর- দূরান্ত থেকে হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমাচ্ছে তার বাড়িতে। সোমবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাড়িতে কয়েক হাজার উৎসুক মানুষের ভিড়। সবাই কৌতুহল নিয়ে লাভনি (আব্দুল্লাহ জিসানকে) দেখছে। প্রতিবেশীরা জানান, বেশ কয়েকদিন আগেই তার শারীরিক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। লাভনির বাবা জানান, তার মেয়ে এবার মির্জাপুর হাতেম আলী বিএল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দেবে। গত বৃহস্পতিবার তিনি স্ত্রীর কাছ থেকে ঘটনাটি জানতে পারেন। শুক্রবার থেকে বিষয়টি মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়লে জানাজানি হয়ে যায়। এরপর থেকেই দিনরাত মানুষ ভিড় করছে তাকে একপলক দেখার জন্য। এখন তার শারীরিক গঠন পুরুষের মতো। এছাড়া চেহারাতেও অনেকটা পরিবর্তন এসেছে। তবে কণ্ঠস্বর এখনো আগের মতই আছে। লাভনির বাবা বলেন, ছেলেতে রূপান্তরিত হওয়ার পর তার নাম রাখেন আব্দুলাহ জিহাদ জিসান। লাভনি আক্তার বর্তমান জিসান বলেন, চার-পাঁচ মাস আগে থেকেই আমার শরীরের পরিবর্তন ঘটতে শুরু করে। কিন্তু লোক-লজ্জায় তখন কাউকে কিছু বলতে পারেনি। কিন্তু গত এক সপ্তাহে আমার শরীরের আমুল পরিবর্তন হলে আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি। পরে বাড়ির সকলে তা বুঝতে পারে। বর্তমানে আমি ভাল আছি। সামনে আমি এসএসসি পরিক্ষা দিবো। তিনি আরো বলেন, এটা আল্লাহর ইচ্ছায় হয়েছে, আমি খুশি। আমার নাম এখন আব্দুল্লাহ জিহাদ জিসান। সোমবার আবারো গোপালপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে শারীরিক বিভিন্ন পরীক্ষা করে এসেছি। সবকিছু ঠিকঠাক আছে। লাভনির মা জানান, পাঁচ মাস আগে লাভনি আক্তারের বিয়ে ঠিক করা হয় একই উপজেলার মাকুলা গ্রামে। তখন লাভলি আক্তার বিয়ের অসন্মতি প্রকাশ করে তার রূপান্তরিত হওয়া ঘটনাটি বললে তিনি বিশ্বাস করেননি। পরে তিনি সবকিছু দেখে শুনে বিশ্বাস করেন। তিনি বলেন, আল্লাহ তাকে মেয়ে থেকে ছেলে বানিয়ে দিয়েছে। আগে তাদের ২ মেয়ে ছিল। এখন ১ ছেলে ও ১ মেয়ে হওয়ায় তা‍রা খুশি। এ বিষয়ে গোপালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আলিম আল রাজি বলেন, আমাদের দেশে মাঝে-মধ্যেই এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। এটা সাধারণত হরমোন পরিবর্তনের কারণে ঘটে। ক্যাপশন: ছবিটি সোমবার তুলেছেন আব্দুল লতিফ তালুকদার।

Previous articleপাঁচবিবিতে ১৬৬ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার ১
Next articleসিলেট শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক হলেন তাহিরপুরের অরুণ চন্দ্র পাল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।