বাংলাদেশ প্রতিবেদক: : মুলাদীতে ভাড়া চাওয়াকে কেন্দ্র করে তাহসিন পরিবহন নামের একটি বাস ভাঙচুর করা হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা দেরটার দিকে উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের রাঘুয়া কাজিরচর সেতু এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

এসময় হামলাকারীরা বাস চালক ও সুপারভাইজারকে মারধর করে মারাতœক আহত করে। এছাড়া বাসের মালামাল লুট করে নেয় বলে অভিযোগ করেছেন চালক ও সুপারভাইজার। বাসটি বরিশাল থেকে হিজলা যাচ্ছিলো। গত শনিবারের ঘটনার জেরধরে মুলাদী সরকারি কলেজের ছাত্র ও স্থানীয়রা এই হামলা চালায়। বাস চালক জসিম উদ্দীন জানান, শনিবার মুলাদী সরকারি কলেজের ৪জন ছাত্র মুলাদী সিনেমা হলের সামনে থেকে ওঠে। তারা রাঘুয়া কাজিরচর সেতু এলাকায় নামার সময় ৪জনে ১০টাকা ভাড়া দেয়। কিন্তু সেখানে জনপ্রতি ভাড়া ১২ টাকা। ছাত্রদের অর্ধেক ভাড়া হিসেবে ২৪ টাকা দিতে বলায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে সুপারভাইজারকে কিলঘুসি মারে। বাস চালক ও সুপারভাইজার তাদেরকে কিছু না বলে বরিশাল চলে যান। রোববার সোয়া ১২টার সময় বাসটি বরিশাল নথুল্লাবাদ থেকে যাত্রী ও ব্যবসায়ীদের মালামাল নিয়ে রওয়ানা দেয়। মীরগঞ্জ ফেরি পার হয়ে বেলা দেরটার দিকে বাসটি রাঘুয়া কাজিরচর সেতু এলাকায় পৌছলে ছাত্র লিয়ন, ইমন, কাইয়ুম, মুন্নাসহ ১৫/২০ জন শিক্ষার্থী হামলা চালায়। হামলাকারীরা বাস চালক জসিম উদ্দীন ও সুপারভাইজার আকাশ হোসেনকে পিটিয়ে মারাতœক আহত করে এবং তাদের সাথে থাকা ২৭ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এছাড়া ছাত্র ও স্থানীয়রা বাসটি ভাঙচুর করে ফল, ওষুধসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে বলে জানান বাস চালক। এসময় যাত্রীরা বাধা দিলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। হামলাকারীরা চলে গেলে যাত্রীরা বাস চালক ও সুপারভাইজারকে মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এঘটনায় বাস চালক বাদী হয়ে মুলাদী থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এব্যাপারে মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, বাস ভাঙচুরের বিষয়টি জেনেছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Previous articleসোনারগাঁওয়ের ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে কেন্দ্র
Next articleরংপুরের পীরগঞ্জে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।