বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নিখোঁজের ৫ দিন পর হাত-পা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় এক শিশু মাদরাসা শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার উপজেলার কালাইয়া গ্রামের নুরুল ইসলামের বাগান থেকে লাবনী আক্তার (৫) নামে ওই মাদরাসাছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

শিশুটির পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কালাইয়া গ্রামের শহিদুল ইসলাম মৃধার নাতনী লাবনী গত ৩১ অক্টোবর খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে অনেক খোঁজাখুজি করে তাকে না পেয়ে লাবনীর মা সোনিয়া বেগম ইন্দুরকানী থানায় নিখোঁজের বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ঘটনার ৫ দিন পর কালাইয়া গ্রাম থেকে শিশুটির হাতের কব্জি ও পায়ের গোড়ালি বিচ্ছিন্ন অবস্থায় একটি বাগান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

লাবনী কালাইয়া শিকদার বাড়ি ময়নুদ্দিন মদিনাতুল মনোয়ারা আরাবিয়া নূরানী মাদরাসার প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

শিশুর লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে পিরোজপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল থানার খায়রুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহত লাবনীর মা সোনিয়া বেগম বলেন, ‘আমার মেয়ে খেলতে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়েছিল। কিন্তু পরে সে আর ফিরে না আসায় অনেক খোজাঁখুজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। কেউ অপহরণ করে তাকে হত্যা করেছে। আমার মেয়ের হত্যাকারীদের আমি কঠিন শাস্তি চাই।’

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো: হুমায়ূন কবির জানান, নিখোঁজের ৫ দিন পর শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে কেউ শ্বাসরোধ করে হত্যা করে নির্জন স্থানে ফেলে রেখে গেছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য তদন্ত চলছে।

Previous articleগ্রেনেড হামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুস সালামের মৃত্যু
Next articleব্যর্থতার ঝুলি নিয়ে দেশে ফিরলেন টাইগাররা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।