বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় নবজাতক ছেলে শিশুকে হত্যাচেষ্টা মামলায় মা ও বাবাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী শাহ নেওয়াজ জানান, গত ৭ নভেম্বর কেন্দুয়া উপজেলা হাসপাতালে ছেলেসন্তান প্রসব করেন জান্নাত আক্তার শিলা (১৯)। তখন তিনি তার নাম-ঠিকানা পরিবর্তন করে নাম নিবন্ধন করেছিলেন। পরে এসআই শফিউল আলম বাদী হয়ে সোমবার রাতে নবজাতককে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন, কেন্দুয়া উপজেলার কান্দিউড়া ইউনিয়নের গোগ গ্রামের বাসিন্দা আল মোমেন (২৪), তার স্ত্রী জান্নাত আক্তার শিলা (১৯), মোমেনের মা শারমিন আক্তার, ও জালালপুর গ্রামের বাসিন্দা শিলার মা শিল্পী আক্তার।

তিনি জানান, বিয়ের মাত্র চার মাসের মাথায় সন্তান প্রসবের ঘটনায় লোকলজ্জার ভয়ে শিলা ও তার শাশুড়ি শারমিন আক্তার শিশুটিকে হাসপাতালের পাশে একটি ধানক্ষেতে ফেলে পালিয়ে যান। স্থানীয় লোকজন পরে শিশুর কান্না শুনে ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। এ ঘটনায় কেন্দুয়া থানা পুলিশ একটি জিডি করে। ওই জিডির সূত্র ধরেই অনুসন্ধান চালিয়ে ১৫ নভেম্বর সোমবার রাতে নবজাতকের মা শিলা ও তার বাবা আল মোমেনকে (২৪) গ্রেপ্তার করে। পরে মঙ্গলবার তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। শারমিন ও শিল্পীকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

কাজী শাহ নেওয়াজ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নবজাতকের মা শিশুটিকে ধানক্ষেতে ফেলে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

কেন্দুয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইউনুস রহমান জানান, শিশুর বাবা-মা বা পরিবারের কেউ তাকে নিতে রাজি নন। উপজেলা সমাজসেবা বিভাগের তত্ত্বাবধানে উপজেলা হাসপাতালে তার পরিচর্যা চলছে। উপজেলা কল্যাণ কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিশুটিকে ঢাকা আজিমপুরে ছোটমনি নিবাসে পাঠানো হবে।

পুুলিশ কর্মকর্তা কাজী শাহ নেওয়াজ বলেন, ‘শিশুর প্রকৃত বাবা কে তা নির্ণয় করার জন্য ডিএনএ টেস্টের জন্য পাঠানো হবে।’

Previous articleবাংলাদেশ বেতার রংপুর কেন্দ্রের ৫৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
Next articleতাহিরপুরে টাস্কফোর্সের অভিযান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।