জয়নাল আবেদীন: ‘হোক সচেতনতার বিস্তার, চাই অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স থেকে নিস্তার’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা বিশ্বের মত রংপুরেও র‌্যালি এবং আলোচনা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে অ্যান্টিমাইক্রোবাইয়াল রেসিসট্যান্স দিবস পালিত হয়েছে ।

রোববার সকালে রংপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে র‌্যালি বের হয়।র‌্যালিটি নগরির প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে রংপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় ফিরে আসে।এরপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় বক্তারা বলেন অ্যান্টিমাইক্রোবাইয়াল রেসিসট্যান্স একটি স্বাস্থ্য সমস্যা। কম বা বেশি দামি সব ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক, সংক্রমণ চিকিৎসায় অকার্যকর হয়ে পড়ছে। এতে করে এ ধরনের রোগজীবাণু ব্যক্তির জন্য প্রাণঘাতী হতে যাচ্ছে।বর্তমানে বাংলাদেশে এটি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে চলেছে। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা উচিৎ নয়। এটির মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার অত্যন্ত ক্ষতিকর। অ্যান্টিবায়োটিক ঠান্ডা বা ভাইরাসজনিত রোগে কোনো কাজ করে না। যদি ভাইরাসজনিত রোগে অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ করা হয়, তবে বিপজ্জনক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। এ ধরনের চিকিৎসা চলতে থাকলে অর্থাৎ অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার যথার্থ না হলে এমন একটা সময় আসবে যখন ব্যাকটেরিয়াকে মারা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।তাই এ সংক্রান্ত সচেতনতা তৈরির বিকল্প নেই।আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন জেলার সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায়, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কানিজ সাবিহা, ডা. মো. শামীম সিদ্দিক ডা. নুরজাহান বিনতে ইসলাম ডা. সখিনা বেগম এমও-স্কুল হেলথ সহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

Previous articleদেশে করোনায় আরও ৭ জনের মৃত্যু
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ঘুষ বাণিজ্যের শেষ কোথায়
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।