তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের-রায়পুরে ও রামগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তি চন্ডিপুর ইউনিয়ন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শামছুল ইসলাম সুমনের (মোটরসাইকেল প্রতীক) পৃথক ২টি স্থানে নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করেছে তার প্রতিপক্ষ আওয়ামীলীগ প্রার্থী ।

এসময় প্রায় ৫ জন কর্মী আহত হয়েছেন। আহতদেরকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসাদেওয়া হচ্ছে। সোমবার রাতে (২২ নভেম্বর) চন্ডিপুর ইউনিয়নের চন্ডিপুর বাজার ও পদ্মা বাজারে পৃথক এ হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে বলে শামছুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান। এঘটনার প্রতিবাদে রাতে তার কর্মী-সমর্থকরা বিক্ষোভ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাত ১০টার দিকে মোটরসাইকেল ও সিএনজি দিয়ে কয়েকজন
নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কামাল হোসেনের কর্মী ও সমর্থকরা এসে অতর্কিতভাবে স্বতন্ত্র প্রার্থী
শামছুল ইসলাম সুমনের নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে দুটি কার্যালয়ের চেয়ার, টেবিল সহ নির্বাচনী সরঞ্জাম ভাংচুর করে দ্রুত পালিয়ে
যায়। এতে দু’টি অফিসের মোটরসাইকেল প্রতীক সমর্থক ৬ জন আহত হয়েছে।

শামছুল ইসলাম সুমন অভিযোগ করে বলেন, আমার জনপ্রিয়তা ইর্ষান্বিত হয়ে নৌকা
প্রতীকের প্রার্থী কামাল হোসেনের লোকজন এসব কর্মকান্ড করছে। এছাড়াও আমার নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মারধরসহ নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত কর্মীদের হুমকি ধমকি দিচ্ছে। তিনি প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার দাবী জানান। এঘটনায় কয়েকজনের নাম উল্লেখ্য করে রামগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ২টি নির্বাচনী অফিস ভাংচুরের ঘটেছে। তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়েছে। পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে।

Previous articleশার্শায় নৌকাকে সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী সোহারাব
Next articleকোম্পানীগঞ্জে বাড়ির আঙ্গিনায় গাঁজা চাষ, অতঃপর…
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।