এস কে রঞ্জন: পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উত্তর হলদিবাড়িয়া গ্রামে ২০ নভেম্বর সকালে মো.আবুল কালাম তার নিজ জমিতে ধান কাটতে গেলে সন্ত্রাসীরা মারধর করেন।

এরপর ২১ নভেম্বর সন্ধার দিকে ওই সন্ত্রাসীরা হলদিবাড়িয়া বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে এলোপাথারী কুপিয়ে গুরুত্বর যখম করেন। তার ডাকচিৎকারে এলাকাবাসীরা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মো.মাসুম হাওলাদারের নেত্রিত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী এই হামলা চালায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিৎকিসাধীন আছেন। তার ভাই মো.জলিল হাওলাদার বাদি হয়ে কলাপাড়া বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়,কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উত্তর হলদিবাড়িয়া গ্রামে মো.আবুল কালাম তার নিজ জমিতে বাড়ি ঘর করে দীর্ঘ বছর ধরে বসবাস ও চাষাবাদ করে আসছেন। গত ২০ নভেম্বর সকালে ধান কাটতে গেলে সন্ত্রাসীরা তাদের মারধর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয় এবং জমিতে গেলে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এর পর ২১ নভেম্বর সন্ধার দিকে মো.মাসুম হাওলাদারের নেত্রিত্বে ৭/৮ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী হলদিবাড়িয়া বাজার থেকে যাওয়ার পথে মো.আবুল কালাম কে এলোপাথারি কুপিয়ে জখম করে ও তার সাথে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং গলা চেপে ধরে হত্যা করা চেষ্টা করেন। তার ডাকচিৎকারে স্থানীয় লোকজন আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। মো. মাসুম হাওলাদারের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে এলাকার সাধারন মানুষ জিম্মি হয়ে আছে। প্রতিনিয়ত হয়রানি করে আসছেন সাধারন মানুষদের। তার ভাই মো.জলিল হাওলাদার বাদি হয়ে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ২২ নভেম্বর কলাপাড়া বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

Previous articleসোনামসজিদ সীমান্তে ৫৯ বিজিবি’র অভিযানে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩’শ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার
Next articleসাপাহারে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রদান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।