জয়নাল আবেদীন: খরচ করেও বছরে তিন লাখ টাকার উপরে আয় করা মানুষের সংখ্যা বাড়লেও দেশে জনসংখ্যার তুলনায় করদাতা না বাড়ায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন অনুষ্ঠানে বক্তারা ।

বুধবার দুপুরে রংপুর বেগম রোকেয়া মিলনায়তনে কর অঞ্চলের আওতায় রংপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকা এবং জেলা ভিত্তিক সর্বোচ্য দীর্ঘসময় আয়কর প্রদানকারী সেরা করদাতাদের সম্মাননা সনদ এবং ক্রেষ্ট প্রদান করা হয় । অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা । কর কমিশনার আবু হান্নান দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য প্রদান করেন পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্য, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা: আবদুল আলীম মাহমুদ, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আবু তাহের মো মাসুদ রানা , ভ্যাট কমিশনার শওকত আলী সাদএবং অতিরিক্ত কর কমিশনার মঞ্জুর আলম। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন আমাদের দেশে ১৭ কোটি মানুষের মধ্যে কমপক্ষে চার কোটি করদাতা হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু দুঃখের বিষয় দেশে করদাতা মাত্র ২৯ লাখ। এই পরিসংখ্যান বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের জন্য সম্পূর্ণ অসামঞ্জস্যপূর্ণ। যারা স্বাবলম্বী এবং বছরে খরচ করেও তিন লাখ টাকার উপরে আয় করছেন, তাদের উপরই কর প্রযোজ্য। কিন্তু তিন লাখের উপর আয় করা বেশির ভাগ মানুষই করদাতার তালিকার বাহিরে রয়ে গেছে। করদাতা বাড়লে রাজস্ব আদায় বাড়বে সঙ্গে উন্নয়নও তরান্বিত হবে। এ প্রসঙ্গে জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে রংপুর সহ দেশ ব্যাপি জরীপ কার্য পরিচালনা করার জন্য প্রস্তাব করেন অতিথিগণ ।

বক্তারা বলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড অভ্যন্তরীন উৎস থেকে রাজস্ব আহরণের জন্য নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে।২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার যে স্বপ্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিকে দেখিয়েছেন সেই স্বপ্ন পূরণ করার জন্য অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ধারাবাহিকভাবে রাজস্ব আহরণের চেষ্টা করে যাচ্ছে রাজীয় রাজস্ব বোর্ড । এক সময় মানুষ আয়কর দিতে ভয় পেতেন এখন আয়কর অফিসের সার্বিক কর্মকান্ডের ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে । করদাতা সংখ্যা প্রতিবছর বাড়ছে । মানুষ ঘরে বসেই ডিজিটালি রিটার্ণ দাখিল করছেন । এদিকে ক্রেষ্ট এবং সম্মাননা সনদ প্রাপ্তদের মধ্যে থেকে ১০ জনই তাদের অনুভূতি ব্যাক্ত করতে গিয়ে আক্ষেপ করে বলেন শুধু মাত্র বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহারের মধ্যে দিয়ে তাঁদের সম্মানিত করা হয় । এছাড়া আর কোন স্থানেই তাঁরা তাদের সম্মান টুকুন পান না । বিশেষ করে ফেরি পারাপারে রাজনৈতিক ব্যাক্তি এমপি মন্ত্রী এবং বড় বড় আমলারা যে মর্যাদা পান সেই হিসাবে তারা কার্ড প্রদর্শনের পরও তাদের যান বাহন ঘন্টার পর ঘন্টা আটকিয়ে রাখা হয় । শুধু তাই নয় ,বিভিন্ন জাতীয় দিবস পালনে তাদের ডাকাই হয়না । একজন আক্ষেপ করে বলেই ফেললেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাথে অন্য কোন বিভাগের সম ন্বয় না থাকায় শ্রেষ্ট আয়কর দাতারা অসম্মাণিত হচ্ছেন । অনুষ্ঠানে দীর্ঘ সময়ে ২জন, সর্ব্বোচ্য ৩জন এবং মহিলা ২জন মোট ৭জন করে রংপুর সিটি এলাকায় ৭ জন এবং জেলা ভিত্তিক ৭ জন করে মোট ৫৬জনকে সম্মাননা সনদ ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয় ।

Previous articleবকেয়া বেতনের দাবিতে চান্দিনায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ গার্মেন্টস শ্রমিকদের
Next articleরংপুরে ৩ কেজি শুকনো গাঁজা উদ্ধারসহ ২ জন গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।