আবু বক্কর সিদ্দিক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সুন্দরগঞ্জ সদর বহুমূখী কারিগরি দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাও: আবুল হোসাইনের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে।

জানা যায়, উক্ত মাদ্রাসার সুপার ২ মাসের ছুটি নিয়ে ৬ মাস অতিক্রান্ত হলেও কর্মস্থলে আসছেন না। তার পরিবর্তে দায়িত্ব পালন করছেন মাদ্রাসার সহকারী মৌলভী আতাউর রহমান। এ নিয়ে স্থানীয় ৯৫ জন সচেতন ব্যক্তি স্বাক্ষরিত অভিযোগ পত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে দাখিল করেছেন। মাদ্রাসা সুপারিনটেন্ডেন্ট আবুল হোসাইন চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে ২ মাসের ছুটি গ্রহণ করে কোন রহস্যজনক কারণে এ পর্যন্ত কর্মস্থলে দায়িত্ব পালন না করায় স্থানীয় সচেতন মহল এ অভিযোগ দাখিল করেন। অপর একটি সূত্র জানায়, উক্ত মাদ্রাসার সুপার মাও: আবুল হোসাইন উপজেলার চন্ডিপুর আলহাজ্ব গেন্দা মরিয়ম সিনিয়র (আলিম) মাদ্রাসা’র অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করছেন। একই সঙ্গে দুই প্রতিষ্ঠান প্রধানের দায়িত্বে থাকাসহ ২ মাসের ছুটিতে ৬ মাস অতিক্রম করেও কর্মস্থলে দায়িত্ব পালন না করার ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে মাও: আবুল হোসাইন সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কোন সদুত্তোর দেননি। সুন্দরগঞ্জ সদর বহুমূখী কারিগরি দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি এমদাদুল হকের কাছ থেকে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে এঁড়িয়ে যান।

এছাড়া, সুন্দরগঞ্জ সদর বহুমুখী কারিগরি দাখিল মাদ্রসার সুপারিনটেন্ডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে গাছ কর্তন করে আত্মসাৎ করাসহ নানাভাবে প্রতিষ্ঠানের সম্পদ হস্তগত করেছেন বলে স্থানীয় সচেতন মহলের অভিযোগ। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মাহমুদ হাসান মন্ডল বলেন, মাদ্রাসার সুপার মাও: আবুল হোসাইনের অনিয়মের বিষয়ে স্থানীয় সচেতন মহলের দায়েরকৃত অভিযোগের অনুলিপি সদয় অবগতির জন্য আমার দপ্তরে দেয়া হয়েছে। উর্ধ্বোতন কর্তৃপক্ষের আদেশ না পাওয়ায় এখনো তদন্ত করা সম্ভব হয়নি।

Previous articleইসি গঠনে রাষ্ট্রপতির সংলাপ অর্থহীন: মির্জা ফখরুল
Next article‘গগায় সগাগ দেখিল সবার কথা শুনিল কিন্তু মুইতো কাউক দেইখপার পাইনো না’
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।