স্বপন কুমার কুন্ডু: ঈশ্বরদীর সাঁড়ায় পদ্মা নদী ভাঙন ঠোকানো ও বাঁধ রক্ষার উদ্যোগ নিলেন পাবনা ৪ আসনের সংসদ সদস্য এমপি নূরুজ্জামান বিশ্বাস। বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে নদী ভাঙ্গন ঠেকানো এবং বাঁধ রক্ষার উদ্যোগ শুক্রবার বিকেল থেকে শুরু হয়েছে।

২০১৭ সালে দুই শতাধিক কোটি টাকা ব্যয়ে রা বাঁধ নির্মাণ করা হয়। বাঁধ নির্মাণের পর বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে অবৈধ ও অপরিকল্পিতভাবে মাটি ও বালু উত্তোলনে মেতে উঠে বালি ও মাটি খেকো চক্র। এতে বাঁধ নির্মাণের সময় ডাম্পিং করা বালু ও পাথর ধ্বসে পড়ে এবং নদীর গতিপথ পরিবর্তন হয়। নদীর গতিপথ পরিবর্তন হয়ে প্রমত্তা পদ্মার ঢেউ এই প্রান্তে আছড়ে পড়লে আবারও এই এলাকা জুড়ে নতুন করে শুরু হয় ভাঙ্গণ। ভাঙ্গণে প্রায় ৫০ একর চরের জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়। এছাড়া বাঁধের বেশ কিছু স্থানে ফাটল ধরে।

ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে এলাকাবাসী স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নূরুজ্জামান বিশ্বাসকে জানালে তিনি গত ২৩ নভেম্বর সরেজমিনে ভাঙ্গণ কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের দ্রæতত ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেন।

এরই ধারাবাহিকতায় জরুরী ভিত্তিতে শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) বিকেলে পাবনা-৪ আসনের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজের উদ্বোধন করেন। এসময় পৌর মেয়র ইসাহক আলী মালিথা, উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আতিয়া ফেরদৌস কাকলি, সাঁড়া ইউপি’র চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার, পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসাইনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। ভাঙ্গন ঠেকাতে সাঁড়ার পুরাতন থানাপাড়া এলাকায় ১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ব্যয়ে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং শুরু হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সাঁড়া ইউনিয়নে নতুন করে ভাঙন শুরু হওয়ায় এলাকার নদী তীরবর্তী মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছিল। সাংসদের বিশেষ উদ্যোগে পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে জরুরি ভিত্তিতে ভাঙন কবলিত এলাকায় বালুবোঝাই জিও বস্তা ফেলার কার্যক্রম শুরু করেছে। সাঁড়ার পাঁচটি স্পটে মোট ১৩০ মিটার দৈর্ঘ্য জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হবে। প্রতিটি ব্যাগের ওজন ২৫০ কেজি।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল আলম চৌধুরী জানান, ‘জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজের জন্য মোট পাঁচ প্যাকেজে কাজ করা হবে। প্রতিটি প্যাকেজের জন্য প্রাথমিক ব্যয় ৩০ লাখ টাকা। সাঁড়ায় অনেক এলাকাজুড়ে নদী ভাঙছে এবং বাঁধে ফাটল ধরেছে। এ অবস্থায় পানি উন্নয়ন বোর্ড শুক্রবার থেকে জরুরি ভিত্তিতে ডাম্পিংয়ের শুরু করেছে। শিগগিরই ভাঙনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা নিতে টেন্ডার আহব্বান করা হবে।’

Previous articleপীরগাছায় প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ
Next articleবালিয়াকান্দিতে প্রধানশিক্ষক ও নারী শিক্ষকের মধ্যে জুতাপেটা, চুল ধরে টানাটানি-মারধর!
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।