ফজলুর রহমান/জয়নাল আবেদীন: রংপুরের পীরগাছায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনে ১৭ জনকে আসামি করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬ জন আসামীকে আটক করেন।

শুক্রবার(১৪ জানুয়ারি) মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়। বুধবার (১২ জানুয়ারি) উপজেলার পারুল ইউনিয়নের অনন্দি ধনিরাম গ্রামে মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

নির্যাতনের শিকার মা গোলাপী বেগম ও মেয়ে রাবেয়া বেগম উক্ত গ্রামের সাজাহান মিয়ার স্ত্রী ও কন্যা। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, অনন্দি ধনিরাম গ্রামের সুজা মিয়ার ছেলে সাজাহান মিয়ার সাথে প্রতিবেশী গোফ্ধসঢ়;ফার মিয়ার ছেলে জিয়ারু মিয়ার জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিলো। বুধবার জিয়ারু ও তার লোকজন সাজাহানের জমি দখল করে গাছ ও রাস্তা কাটতে থাকেন। এসময় সাজাহান ও তার পরিবারের লোকজন বাঁধা দেয়। এতে জিয়ারু ও তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে সাজাহানের স্ত্রী গোলাপী বেগম ও মেয়ে রাবেয়া বেগমকে গাছে বেঁধে নির্যাতন চালায়। পরে স্থানীয়রা ৯৯৯ লাইনে ফোন দিলে পীরগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করান। তারা এখনও সেখানে চিকিৎসাধীন আছে।

এঘটনার গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সাজাহান বাদী হয়ে পীরগাছা থানায় ১৭ জনকে আসামি করে একটি এজাহার দায়ের করেন। গত শুক্রবার রাতে পীরগাছা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসামী জিয়াউর রহমান, রুপভান বেগম, জোসনা বেগম, রুমেনা বেগম, দুলালী বেগম ও রাহেলা বেগমকে আটক করেন। সাজাহান মিয়া বলেন, প্রতিবেশী জিয়ারু ও তার লোকজন জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে আমার মেয়ে ও স্ত্রীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন চালায়। আমি সুষ্ঠু বিচার চাই। পীরগাছা থানার এস আই মোকছেদ আলী জানান, এঘটনায় অভিযুক্ত ৬জন আসামীকে আটক করা হয়েছে।

Previous articleহেইডেনকে কোরআন শরিফ উপহার দেয়ার কারণ জানালেন রিজওয়ান
Next articleকলাপাড়ায় জেলেদের সচেতনতা বৃদ্ধি এবং ৫০০ লাইফজ্যাকেট ও শীতবস্ত্র বিতরণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।