বাংলাদেশ প্রতিবেদক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে প্রতিবেশীর ধর্ষণে বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী (২০) পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় একটি মামলা করেছেন ওই কিশোরীর মামা।

উপজেলার পৌরশহরের ৪নং ওয়ার্ডের পূর্ব বাইপাস মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

ধর্ষণের শিকার ওই বাকপ্রতিবন্ধীর শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পৌরশহরের ৪নং ওয়ার্ডের পূর্ব বাইপাস মোড় এলাকায় দীর্ঘদিন থেকে এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারী তার বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়েসহ ভাইয়ের বাড়ির পাশে বসবাস করে আসছেন। বাকপ্রতিবন্ধী ওই কিশোরীর বাবা প্রায় ১৪ বছর আগে মারা গেছেন। মা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী হওয়ায় বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে বাড়িতে রেখে বিভিন্ন এলাকায় ভিক্ষাবৃত্তি করেন। এ সুযোগে প্রতিবেশী মৃত আকবার আলী ওরফে ঝড়ু মিয়ার ছেলে নুরু মিয়া (৫০) বিভিন্ন সময়ে ওই বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। কিছুদিন থেকে ওই কিশোরীর শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হওয়ায় পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হলে তাকে পৌরশহরের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গত ৯ জানুয়ারি আল্ট্রাসনোগ্রাফি করা হয়। পরীক্ষার রিপোর্টে দেখা যায় ওই কিশোরী পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এমতাবস্থায় ওই কিশোরীর মামা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ধর্ষিতার মামা বলেন, ‘ভাগ্নির শারীরিক গঠনে সন্দেহ হলে গত ৯ জানুয়ারি তাকে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হয়। পরীক্ষার রিপোর্টে দেখা যায়, আমার বাকপ্রতিবন্ধী ভাগ্নি পাঁচ মাসের গর্ভবর্তী। তখন ভাগ্নির কাছে জানতে চাইলে সে ইশারা-ইঙ্গিতে প্রতিবেশী নুরু মিয়ার কথা বলে। পরে ১৫ জানুয়ারি আমি নুরু মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।’

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা অফিসার ইনচার্জ মো: আব্দুল্লাহিল জামান বলেন, ‘বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরীর মামা বাদি হয়ে শনিবার রাতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিকে গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।’

Previous articleশাহজাদপুরে বাঘাবাড়ি মিল্কভিটা কারখানায় অগ্নিকাণ্ড, পাউডার প্লান্টের ব্যাপক ক্ষতি
Next articleনোয়াখালীতে ছাত্রদলের ১৫ নেতার পদত্যাগ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।