ফজলুর রহমান: রংপুরের পীরগাছায় এক যুবক সাবেক স্ত্রীকে পুনরায় ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ হয়ে তার ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। পরে সে নিজেও বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন এবং সাবেক স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করাসহ তার বাবার বাড়িতেও অগ্নিসংযোগ করা হয়।

সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার কৈকুড়ী ইউনিয়নের মকরমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রোকন মিয়া ওই গ্রামের তয়েজ উদ্দিন মাস্টারের ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত সাত বছর আগে তয়েজ উদ্দিন মাষ্টারের মেয়ে সুমি বেগমের সাথে পাশ্ববর্তী সুবিদ গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে মিজান মিয়ার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ৫ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের চার বছর পরে তাদের মাঝে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। বিচ্ছেদের পরে পুনরায় স্ত্রীকে ফিরে পেতে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে মিজান। কিন্তু তাদের যোগাযোগের মাঝে বাধ সাজে সুমির বড় ভাই রোকন মিয়া।

সোমবার সন্ধ্যায় চৌধুরানী বাজার থেকে সুমি ও তার ভাই রোকন বাড়ি উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে মকরমপুর সড়কের কাছে পৌঁছালে মিজান তাদের পথ রোধ করেন। পরে মিজান তার হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ভাই-বোনকে কুপিয়ে আহত করে তাদের বাড়িতে গিয়ে অগ্নিসংযোগ করেন। এসব ঘটনার পর মিজান নিজেও বিষপানে আতœহত্যার চেষ্টা করেন। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় সুমি, রোকন ও মিজানকে উদ্ধার করে পীরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোকনের মৃত্যু হলেও আহত সুমি ও মিজানের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদেরকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান, পীরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. নাহিদুজ্জামান তালুকদার।

পীরগাছা থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Previous articleছেলের সড়ক দুর্ঘটনার খবরে প্রাণ গেল মায়ের
Next articleদেশে করোনায় বেড়েছে মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।