বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভোলার লালমোহনে এক যুবককে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাড়িতে ডেকে নিয়ে পরকীয়ার অপবাদ দিয়ে গাছের সাথে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই অপবাদে তিন সন্তানের জননীকেও গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করা হয়।

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা সাজানো হয় বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর।

ঘটনাটি কয়েক দিন আগের হলেও শুক্রবার বিকেলে ভুক্তভোগী যুবক হেলাল উদ্দিন (৪৫) নির্যাতনের অভিযোগে ছয়জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। এরপর পরকীয়ায় অভিযুক্ত নারীর স্বামী নির্যাতনকারী মো: শাহজাহানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অভিযোগ সূত্রে সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড তেগাছিয়া গ্রামের মুজাপ ছাদির বাপের বাড়ির আলী আহমদের ছেলে মো: শাহজাহান, তার সহযোগী মনির আহমদ, ইউনুস ও হান্নান গত রোববার (৩ এপ্রিল) সকালে একই এলাকার আব্দুল মালেক হাওলাদার বাড়ীর নাজিমুদ্দিনের ছেলে মো: হেলাল উদ্দিনকে (৪৫) পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কৌশলে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাড়িতে ডেকে এনে শাহজাহানের স্ত্রী ৩ সন্তানের জননীর সাথে পরকীয়ার মিথ্যা অপবাদ দিয়ে জনসম্মুখে গাছের সাথে বেঁধে চরম নির্যাতন করেন।

নির্যাতনের এক পর্যায়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ও হেলালউদ্দীনের মামাতো ভাই মো: রতন হাওলাদার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় শুক্রবার হেলালউদ্দীন লালমোহন থানায় মনির আহমদসহ ৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। এর আগে এ বিষয় নিয়ে এক সপ্তাহ মুখ খোলেননি হেলাল উদ্দিন।

এ বিষয়ে লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মাকসুদুর রহমান মুরাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই মামলায় মহিলার স্বামী মো: শাহজাহানকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Previous articleতথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি‌ প্রতিমন্ত্রীর শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব পরিদর্শন
Next articleরংপুরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় মারা গেলো ৬শ মুরগি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।