আবুল কালাম আজাদ: রঙ্গীন স্বপ্নের ঠিকানায় গেলেন ১৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে অগ্রাধিকার আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় তৃতীয় ধাপে ৪৩ টি ঘরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে ১৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পেলেন জমিসহ স্বপ্নের ঠিকানা নতুন সেমিপাকা রঙ্গীন ঘর।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) সকালে গণবভন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই ঘরগুলোর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঘর উদ্বোধন শেষে কালিহাতী উপজেলা পরিষদ হল রুমে সুবিধাভোগীদের হাতে জমির দলিলাদিসহ প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের ঘর হস্তান্তর করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনছার আলী বি.কম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হুসেইন, ভাইস চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামরুল হাসান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সেহাব উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এমএ মালেক ভূঁইয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী আশরাফ হুমায়ুন বাঙাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান মজনু, কালিহাতী প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর আনোয়ার হোসেনসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান ও সুবিধাভোগী পরিবার।

সূত্রে জানাযায়, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে অগ্রাধিকার আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে তৃতীয় ধাপে জমি নাই, ঘর নাই এ রকম কালিহাতী উপজেলার ১৮ টি ভূমিহীন পরিবারের জন্য দুই শতক জমিসহ দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। ঘরের সাথে সংযুক্ত রান্নাঘর, সামনে খোলা বারান্দা ও টয়লেট রয়েছে।

ঘরের দলিলাদি হাতে পেয়ে অসহায় হতদরিদ্র পরিবারগুলো খুশিতে আত্মহারা। এই স্বপ্নের ঠিকানায় যেতে পেরে তাদের চোখে-মুখে আনন্দের ছাপ লক্ষ্য করা গেছে। গৃহ হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন খিলদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান।

Previous articleসিংগাইরে ঈদ উপলক্ষে ৫৪ পরিবার পেলেন জমিসহ ঘর
Next articleঈদযাত্রার জন্য প্রস্তুত বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ-রুট
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।