আবু বক্কর সিদ্দিক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ বামনজল গ্রামের শয়নঘরে দুর্ধর্ষ চুরির অভিযোগ করে কামরুননাহার বেগম (৩৮) নামে গৃহিনী সন্তানদের নিয়ে হুমকীরমুখে পড়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

জানা যায়, শনিবার সকালে উক্ত গ্রামের সাইফুল ইসলাম আকন্দের স্ত্রী কামরুন্নাহার বেগম (৩৮) গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে এমন অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, গত ১৮ মে রাতে সন্তানদেরকে বাসায় রেখে রংপুরে বাবার বাসায় ছিলেন। তাঁর স্বামী ঢাকায় থাকেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভাশুর মোমিন পুলিশের ছেলে শাওন মিয়া (২৮) অপরিচিত ২-৩ জনকে সঙ্গে নিয়ে শয়নঘরে ঢুকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। এসময় ঐ ঘরে থাকা তার মেয়ে সুমাইয়া ইয়াছমিন মিশু (১৩) ও সুরাইয়া ইয়াছমিন সায়মা (৭) টের পেলে শাওন মিয়া তাদের মুখ চেপে ধরে ধারালো অস্ত্রেরমূখে জিম্মি করে। চুরি শেষে চলে যাবার সময় মিশু ও সায়মার আর্তচিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে শাওন মিয়াকে আটক করেন।

বিষয়টি মিমাংসার কথা বলে স্বজনরা শাওনকে ছেড়ে নিয়ে যায়। ঘটনা মিমাংসা না হওয়ায় কামরুন্নাহার থানায় এজাহার করেন। থানার এএসআই শফিকুল ইসলাম এজাহার মর্মে তদন্ত করেন। এরপর থেকে শাওন মিয়া ও তার সঙ্গীরা কামরুন্নাহার ও তার সন্তানদেরকে কঠোর হুমকী-ধামকী ও ভয়ভীতি প্রদান করছে। ভয়ে সন্তানদেরসহ বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন না কামরুন্নাহার ও তার সন্তানরা।

তিনি এজাহারে উল্লেখ করেন, শাওন মিয়া দীর্ঘদিন ধরে মাদক, নারীসহ বিভিন্ন অপরাধ প্রবনতার সঙ্গে জড়িত থাকায় বিজ্ঞ আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এছাড়া, মাদক দ্রব নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলায় একমাস সাজাপ্রাপ্ত। এএসআই শফিকুল ইসলাম জানান, অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। থানা অফিসার ইনচার্জ সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Previous articleকরোনায় মারা গেছেন ১৮৯ জন ব্যাংকার
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।