আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার পৌজান বাজারের পূর্বপাশে একটি কাঁচা রাস্তা দখল করে ঘর নির্মান করেছে স্থানীয় প্রভাবশালী নূরুল ইসলাম ও শফিক নামের আপন দুই ভাই। ওই ঘর উচ্ছেদের দাবিতে গতকয়েকদিন যাবত পৌজান বাজার ব্যবসায়ীরা ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে আসছে।

স্থানীয়রা জানান,৪০বছর যাবৎ ওই রাস্তা দিয়ে পৌজান বাজার হতে পৌজান,গোপালপুর, হাওড়াপাড়া,চাকলান ও বলিখন্ডসহ ১০/১২টি গ্রামের মানূষ যাতায়াত করে আসছে। বর্তমান রাস্তায় ইটেরসলিংয়ের কাজ শুরু হলে পৌজান বাজারে পুর্বপাশে কাঁচা রাস্তার উপর ঘর তুলে জবর দখল করেছে নূরুল ইসলামরা।ওই ঘর উচ্ছেদ করে রাস্তার জায়গা বের করে মানুষের চলাচলের উপযোগী করার দাবি জানান বিক্ষুদ্ধ জনতা। খবর পেয়ে বিষয়টি সমাধানের জন্য পাইকড়া ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ হোসেন,ইউনিয়ন আ্#৩৯;লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম,সাধারণ সম্পাদক মো.জাকির হোসেন মোল্লা,পাইকড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সেলিম রেজা,বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মো. কোরবান আলী,৯নং ওয়ার্ড আ্#৩৯;লীগের সভাপতি মো. আ.সাত্তার এগিয়ে আসেন।তারা ঘর নির্মানকারি নূরুল ইসলাম ও তার ভাই শফিককে ডেকে এনে দুই দিনের মধ্যে ঘর সরিয়ে নিতে বলা হয়। ঘর সরিয়ে না নিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

পৌজান বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মো.কোরবান আলী জানান,প্রায় তিন বছর যাবত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি, ১৬বছর যাবৎ পৌজান বাজারে ব্যবসা করে আসছি এই রাস্তা সরকারি ভাবে বার বার মাটি ফেলা হয়েছে কেউ কোন দিন বাধা দেননি। ৪০ বছর ধরে ওই রাস্তা দিয়ে ১০/১২ গ্রামের লোকজনের চলাচল করে আসছে। হঠাৎ ওই রাস্তা জবরদখল করে ঘর নির্মাণ করেছে।

অভিযুক্ত নূরুল ইসলাম ও শফিক জানান,আমাদের পৈত্তিক সম্পত্তিতে ঘর নির্মাণ করেছি,এটা সরকারি কোন রাস্তা না। এবিষয়ে পাইকড়া ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ হোসেন জানান,রাস্তায় ঘর নির্মাণকারিদের দুই দিনের মধ্যে ঘর সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। ঘর সরিয়ে না নিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ১৩ মামলার আসামী গ্রেফতার
Next articleচট্টগ্রামে বৃষ্টি অব্যাহত, নগরজুড়ে জলাবদ্ধতা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।