বাবুল আকতার: নওগাঁর সাপাহার উপজেলার ৭৬ নং পাতাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে টেন্ডার ছাড়াই বিদ্যালয় মাঠের ২ টি শিশু গাছ কেটে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।

গত মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সরেজমিনে ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়,বিদ্যালয় মাঠের উত্তর ও দক্ষিন পাশ থেকে প্রায় ২০/২৫ হাজার টাকা মুল্যের দুইটি শিশু গাছ কাটা হয়েছে। গাছের গুড়ি দুটি এখনও বিদ্যামান আছে। ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম অফিসের কাজে উপজেলা সদরে যাওয়ার কারনে তাকে বিদ্যালয়ে পাওয়া যায়নি। তবে বিদ্যালয় মাঠের সরকারি গাছ কি ভাবে কেটে বিক্রি করা হয়েছে তা উপস্থিত সহকারী শিক্ষক আব্দুল আজিম ও আব্দুর রশিদ এর নিকট জানতে চাইলে তারা জানান গাছ গুলো বহুদিন ধরে মরে শুকিয়ে মাঠের দিকে হেলে গিয়ে ছিল। মাঠে ছাত্র ছাত্রীদের সমাবেশের সময় ডালপালা ভেঙ্গে পড়ছিল তাই ঈদের ছুটির সময় প্রধান শিক্ষক গাছ দুটি কেটে স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ি মতিউর রহমানের নিকট বিক্রি করেছেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের সাথে কথা হলে তিনি গাছ দুটি বিক্রির কথা অকপটে স্বীকার করেন ও এ বিষয়ে লেখা লেখি না করার জন্য বলেন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত ও টেন্ডার অনুমোদন ছাড়া কি ভাবে সরকারী বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে গাছ কেটে বিক্রি করেছেন জানতে চাইলে তার উপযুক্ত কোন উত্তর তিনি দিতে পারেননি। তবে গাছ বিক্রির টাকা দিয়ে তিনি বিদ্যালয়ের রাস্তা সংস্কার ও পুকুর পাড়ে মাটি ভরাট কাজ করেছেন বলে দাবী করেন। এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নব নিযুক্ত সভাপতি মোঃ আবদুল্লাহ জানান গাছ গুলো বেশ কয়েক বছর হলো মরে গিয়েছিল। গাছ কাটার বিষয়ে কোন সভা বা রেজুলেশ করা হয়নি। স্থানীয় লোকজনের সাথে মৌখিক আলোচনার ভিত্তিতেই প্রধান শিক্ষক গাছ গুলো বিক্রি করেছেন। এ দিকে সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গাছ বিনা টেন্ডারে ছুটির দিনে বিক্রি করায় ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

Previous articleডোকলামে চীনের সামরিক গ্রাম, চিন্তায় ভারত
Next articleমূল্যস্ফীতি যেভাবে আপনার জীবনকে প্রভাবিত করে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।