বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের ইতালি প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, ডাকাতির সরঞ্জাম ও লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার করা হয়।

শনিবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে নোয়াখালী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মো. শহিদুল ইসলাম।

এর আগে, শুক্রবার (২৬ আগস্ট) রাতে ঢাকা, লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন,চাটখিল উপজেলার পশ্চিম পরকোটের ফজল করিম মোল্লা বাড়ির মৃত নুর মিয়া পাটোয়ারী বাড়ির ফরজ আলী জাহাঙ্গীর (৪৪), লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার ডুমুরিয়া এলাকার পালের বাড়ির মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে মো. মহসিন (৪৯), আইয়ে নগর হাজী বাড়ির আবু তাহেরের ছেলে মোঃ কামাল হোসেন (৩২) এবং লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর মজিবুর গনি মেস্ত্রি বাড়ির জাহাঙ্গীর আলম (২৪)।

পুলিশ সুপার মো. শহিদুল ইসলাম জানান, গত ১৮ আগস্ট চাটখিল উপজেলার ২ নম্বর রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের আমিন ভিলায় (বাবুল ডাক্তারের বাড়ি) ডাকাতির ঘটনা ঘটে। সেই বাড়ির সবাই ইতালি প্রবাসী। এবং তাদের ছেলের বিয়ের জন্য তারা কয়েকদিন আগে দেশে আসে। বিয়ের আগের দিন রাতে সশস্ত্র ডাকাতদল সেখানে গেইট ভেঙে ও দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে ৮ ভরি স্বর্ণের গহনা, ১৩ ভরি রূপার নুপুর, ৮টি মোবাইল ও নগদ সাড়ে চার লাখ টাকা লুন্ঠন করে। এ ঘটনায় চাটখিল থানায় একটি মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী পরিবার।

পরবর্তীতে পুলিশের একাধিক টিম অভিযান চালিয়ে ও তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ২টি মোবাইল সেট ও নগদ ২৫ হাজার উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতির ঘটনায় একাধিক মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত বাকি ডাকাতদের গ্রেফতার ও লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে ও গ্রেফতারদের বিচারিক আদালতে পাঠানো হবে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

Previous articleশর্তসাপেক্ষে আইজিপির ভিসা বাংলাদেশের জন্য অবমাননাকর: মির্জা ফখরুল
Next articleফেসবুকে প্রেম, বিয়ে করতে এসে বন্দি ভারতীয় তরুণী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।