সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় রোপা আমন ধানের আবাদ সরকারী লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী পরিমাণ জমিতে হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে ৷ এখন এক পণ রোপা আমন ধানের চারা চারশো টাকায় কেনাবেচা হচ্ছে ৷ মাসখানেক আগে থেকে অনেক মাঠেই কৃষকেরা এ ধানের আবাদ শুরু করেছেন ৷

বেশীরভাগ মাঠে কৃষকেরা জমিতে সেচ মেশিনে পানি সেচ দিয়ে জমি তৈরী ও ধান চারা লাগাচ্ছেন ৷ উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জানানো হয় , কৃষি নির্ভর উল্লাপাড়া উপজেলায় এবারের মৌসুমে ৯ হাজার ১২৫ হেক্টর পরিমাণ জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদের সরকারী লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৷ উপজেলার রামকৃষ্ণপুর , সলঙ্গা , হাটিকুমরুল , বড়হর ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠে আগে কৃষকেরা রোপা আমন ধানের আবাদ শুরু করেছেন ৷

এখন বাঙ্গালা , পূর্ণিমাগাঁতী , সদর উল্লাপাড়া , দুর্গানগর , পঞ্চক্রোশী ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠে এ ধানের আবাদ শুরু করা হয়েছে ৷ বিভিন্ন মাঠে সেচ মেশিন চালিয়ে জমিতে পানি সেচ দিয়ে জমিতে পাওয়ার টিলারে হালচাষ ও ধান চারা লাগানো হচ্ছে ৷ কৃষকেরা জানান বেশী হারে ফলনশীল বিভিন্ন জাতের রোপা আমন ধানের চারা লাগাচ্ছেন ৷ উপজেলার ভয়নগর , বাখুয়াসহ আরো ক্#৩৯;টি মাঠে সেচ মেশিনে পানি সেচ দিয়ে জমিতে পাওয়ার টিলারে হালচাষ আর চারা লাগানো দেখা গেছে ৷ একাধিক সেচ মেশিন মালিকের বক্তব্য তারা নিজের জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদ আর স্ক্রীমভুক্ত কৃষকদের জমিতে ফসলের অংশ নেওয়ার চুক্তিতে জমিতে পানি সেচ দিচ্ছেন ৷

কৃষক জামাল আকন্দ , করিম মিয়া , মালেক জানান এবারে মৌসুমে স্বাভাবিক বর্ষা হয়নি ৷ হয়তো আর বন্যার পানি আসবে না ৷ তারা জমি পতিত না রেখে রোপা আমন ধানের আবাদে নেমেছেন ৷ এদিকে আজ শুক্রবার উপজেলা সদরের কাওয়াক মোড়ে এক পণ (৮০ মুঠো) রোপা আমন ধানের চারা চারশো থেকে চারশো বিশ ত্রিশ টাকায় কেনাবেচা হচ্ছে ৷ ধান চারা বিক্রেতা সাখাওয়াত হোসেন বলেন এখন কৃষকদের কাছে ২২ জাতের ধানের চারার চাহিদা সবচেয়ে বেশী ৷ তারা উত্তরের চান্দাইকোনাসহ বিভিন্ন এলাকার মোকাম বাজার থেকে চারা কিনে এনে এখানে বিক্রি করছেন ৷ চারা কিনতে আসা নতুন দাদপুর গ্রামের কৃষক বাহাদুর আলী জানান নিজের প্রায় দেড় বিঘা জমিতে এর আবাদ করবেন ৷ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সূবর্ণা ইয়াসমিন সুমী বলেন তার বিভাগ থেকে সরকারের কৃষি প্রণোদনায় প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে রোপা আমন ধান বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরণ করা হয়েছে ৷

কৃষি অফিস থেকে পাওয়া ধান বীজে ও অনেক কৃষক নিজ বাড়ির ধানে রোপা আমন ধানের নিজস্ব বীজতলা করেছেন ৷ এখন জমিতে সে চারা জমিতে লাগাচ্ছেন ৷ এছাড়া বিভিন্ন হাট কিংবা সরাসরি বীজতলা থেকে কৃষকেরা চারা কিনে জমিতে লাগাচ্ছেন ৷ তিনি আরো বলেন গতকাল বৃহস্পতিবার পহেলা সেপ্টেম্বর অবধি গোটা উপজেলায় প্রায় সাড়ে আট হাজার হেক্টর পরিমাণ জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদ করা হয়েছে ৷ এবারের মৌসুমে সরকারী লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে দেড় থেকে দুশো হেক্টর পরিমাণ জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদ বেশী হবে বলে আশা করছেন ৷

Previous articleঢাকাস্থ ভাষানচর কল্যাণ সমিতি বরিশাল’র অভিষেক
Next articleঘুরে ফিরে ছোট ছেলে শাওনকে খুঁজছেন মা ফরিদা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।